kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ জানুয়ারি ২০২০। ১০ মাঘ ১৪২৬। ২৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

facebook থেকে

২১ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



facebook থেকে

কার্নিভ্যাল রো

কার্নিভাল রো [২০১৯]

আমাজন প্রাইম

যুক্তরাষ্ট্র

♦    মনে করুন আপনাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হচ্ছে এমন এক পৃথিবীর সঙ্গে, যেখানে মানুষ বাদেও আরো কিছু বুদ্ধিমান প্রাণী একসঙ্গে বসবাস করে। সেই পৃথিবীতে পরী, শিংওয়ালা খুরপেয়ে মানুষ, মানব নেকড়ে, উইচ ছাড়াও আছে উপরোক্ত প্রাণীদের কম্বিনেশন (হাফ ব্লাড), ম্যাজিক, মৃত থেকে পুনর্জীবন পাওয়া কুিসত জীবজন্তু। স্বভাবতই একটু সময় লাগবে এ রকম পৃথিবীতে অভস্ত হতে, কোন জাতির ইতিহাস কী, তাচ্ছিল্য করে কাদের কী ডাকা হয় সেটা জেনে-বুঝে উঠতে। ‘কার্নিভাল রো’-এর বেলায়ও তাই।

     সাদা চোখে দেখলে কাহিনি এত জটিল নয়। বার্গ নামের এক এলাকা, শাসনব্যবস্থা এখানে পার্লামেন্টারি ডেমোক্রেসি। বার্গের সঙ্গে প্যাক্টদের যুদ্ধের ফলে তৈরি হয় রিফিউজি। এসব অন্য জাতির রিফিউজিদের বার্গে আসা নিয়ে রাইট উইং রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে বর্ণবাদী সাধারণ মানুষ তটস্থ। রিফিউজিরা সরকারি পদে চাকরি করতে পারে না, তারা সেকেন্ড ক্লাস সিটিজেনদের মতোই ব্যবহার পায়। পরিচিত মনে হচ্ছে? রাইক্রফট ফাইলোসট্রেট বার্গের একজন ডিটেকটিভ। এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন অরল্যান্ডো ব্লুম, শহরে একের পর এক ঘটতে থাকা রহস্যময় হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করতে যাওয়া ফাইলোকে ঘিরেই কাহিনি আবর্তিত।। ক্রাইম থ্রিলারের আদলে এটা আসলে লাভ স্টোরি এবং আমি অবশ্যই বলব গল্পটা দারুণ। শুরুর দিকে অনেক বেশি প্লট-সাবপ্লট মনে হলেও শেষের দিকে বেশ গুছিয়ে এনেছে। এমন কোনো চরিত্র পাইনি, যাদের বেলায় মনে হয়েছে এরা না থাকলেও চলত। প্রতি পর্বেই কিছু চমক ছিল। কারা ডেভলিন তাঁর চরিত্রে দারুণ ছিল। জেরাড হ্যারিস ও ইন্দ্র ভার্মা ছিল দুর্দান্ত। চমত্কার ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর, চোখ জুড়ানো প্রোডাকশন ডিজাইন। সব মিলিয়ে আমার রেটিং ৮!

জেরিন শবনম

সিরিয়ালখোর গ্রুপের পোস্ট

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা