kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ জানুয়ারি ২০২০। ১০ মাঘ ১৪২৬। ২৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

মহারানির প্রত্যাবর্তন

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে নিয়ে অনেক সিনেমা আর টিভি সিরিজ হলেও নেটফ্লিক্সের ‘দ্য ক্রাউন’-এর জনপ্রিয়তার ধারেকাছে পৌঁছাতে পারেনি কোনোটি। ১৭ নভেম্বর মুক্তি পেয়েছে জনপ্রিয় এই সিরিজটির তৃতীয় সিজন। লিখেছেন হাসনাইন মাহমুদ

২১ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



মহারানির প্রত্যাবর্তন

গ্রেট ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ এক জীবন্ত কিংবদন্তী।  দেশটিতে শুধু আনুষ্ঠানিক রাজতন্ত্র থাকলেও নেতৃত্বগুণ এবং অসাধারণ ব্যক্তিত্বের কারণে দ্বিতীয় এলিজাবেথের জীবন নিয়ে সাধারণের প্রচণ্ড আগ্রহ রয়েছে। সুযোগটা হাতছাড়া করেননি নির্মাতারাও। চলচ্চিত্র ও টিভি সিরিজে দ্বিতীয় এলিজাবেথকে নানাভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। তবে নেটফ্লিক্সের ‘দ্য ক্রাউন’ সিরিজটি ছাড়িয়ে গিয়েছে সব কিছুকেই। প্রথম দুই সিজন শুধু ঝড় তোলেনি, বাগিয়ে নিয়েছে অনেক পুরস্কারও। এই সিরিজ উপহার দিয়েছে ক্লেয়ার ফয়ের মতো অভিনেত্রীকে। এই ব্রিটিশ অভিনেত্রী হাজারো ভক্তের মনে পাকাপোক্ত জায়গা করে নিয়েছেন দ্বিতীয় এলিজাবেথের চরিত্রে অনবদ্য অভিনয় করে। এবার আসছে সিরিজটির তৃতীয় সিজন। প্রথম সিজনে ১৯৪৭ সালে প্রিন্স ফিলিপের সঙ্গে এলিজাবেথের বিয়ের পর থেকে ১৯৫৫ পর্যন্ত ঘটনাবলি চিত্রায়িত হয়েছিল। এ সিজনে মূলত রানি এলিজাবেথের রাজত্বের প্রথম দিকের গল্প এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ-পরবর্তী ইংল্যান্ডের নব জাগরণ দেখানো হয়েছে। এবারের পর্বগুলোতে রানির ঘনিষ্ঠ শিল্প উপদেষ্টা অ্যান্থনি ব্লান্টের সোভিয়ের গুপ্তচর হিসেবে পরিচয় প্রকাশ, ওয়েলসের অ্যাবেরফ্যান দুর্ঘটনা, অ্যাপোলো এগারোর চাঁদে গমন, ব্রিটিশ শাসন থেকে আফ্রিকার দেশগুলোর স্বাধীনতা লাভের মতো বিশ্বের ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাগুলো উঠে আসছে। এ সিজনের শেষদিকে প্রিন্সেস ডায়ানা ও প্রিন্স চার্লসের বর্তমান স্ত্রী ডাচেস ক্যামিলাকেও দেখা যাবে। তবে এবার দর্শকরা আর ক্লেয়ারকে দেখতে পারবেন না এলিজাবেথ হিসেবে। রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের জীবনের বিভিন্ন পর্ব সিরিজটিতে রূপায়িত হওয়ায় ভিন্ন ভিন্ন বয়সের চরিত্রকে দেখা যাচ্ছে সিরিজে। তাই এবারের পর্বে মহারানির চরিত্রে রূপদান করেছেন অস্কারজয়ী অভিনেত্রী অলিভিয়া কোলম্যান। আরেক গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র রানি এলিজাবেথের ছোট বোন প্রিন্সেস মার্গারেট চরিত্রেও আসছে পরিবর্তন। ভেনেসা কিরবির পরিবর্তে চরিত্রটি করেছেন হেলেনা বনহ্যাম কার্টার।

ড্রামাধর্মী সিরিজটি এর মধ্যে সর্বকালের অন্যতম ব্যয়বহুল সিরিজ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এর একেকটি পর্ব প্রযোজনা করতে নেটফ্লিক্সের খরচ হয়েছে প্রায় পাঁচ মিলিয়ন পাউন্ড! ‘দ্য ক্রাউন’ এরই মধ্যে পরিণত হয়েছে নেটফ্লিক্সের অন্যতম জনপ্রিয় সিরিজে। বিশেষ করে গ্রেট ব্রিটেনে জনপ্রিয়তায় সিরিজটির ধারে-কাছেও কোনোটি নেই। এবার তাই নেটফ্লিক্স ব্রিটিশ ভক্তদের দিচ্ছে একটি বিশেষ উপহার। নেটফ্লিক্সের সদস্য না হয়েও ব্রিটেনের দর্শকরা বিনা পয়সায় দেখতে পারবেন প্রথম পর্বটি!

নির্মাতারা তৃতীয় সিজনে ক্লেয়ার ফয়কে পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিলে বিশ্বজুড়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে। কারণ এলিজাবেথ চরিত্রে তাঁর অনবদ্য অভিনয় কেড়ে নিয়েছিল সবার হূদয়। ৩৫ বছর বয়সী এ তারকা তো এ চরিত্রে অভিনয়ের জন্য এমিও জিতেছিলেন। সমালোচনার পরও নিজেদের সিদ্ধান্তে অটল থাকেন নির্মাতারা। অন্যতম নির্মাতা পিটার মরগ্যান পরিবর্তনটি সম্পর্কে বলেন, ‘মেকআপ দিয়ে হয়তো বয়স পরিবর্তন করতে পারবেন; কিন্তু চরিত্রটির অভিজ্ঞতা প্রকাশে দরকার ছিল একজন অভিজ্ঞ তারকার।’

রানি এলিজাবেথ চরিত্রে কিন্তু এবারই প্রথম অভিনয় নয় অলিভিয়া কোলম্যানের। গত বছর ‘দ্য ফেভরিট’-এর জন্য অস্কার পাওয়া এ তারকা ২০১২ সালেও অভিনয় করেছিলেন এ চরিত্রে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ফ্র্যাংকলিন ডি রুজভেল্টকে নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র ‘হাইড পার্ক অন হাডসন’ চলচ্চিত্রেও কোলম্যানকে দেখা যায় রানির মুকুট পরতে। এ ছাড়া ‘দ্য আয়রন লেডি’তে তিনি করেছিলেন মার্গারেট থ্যাচারের কন্যার চরিত্র। সব মিলিয়ে রানির চরিত্র করা তাঁর জন্য অনেকটাই ‘ডালভাত’। তাই রানি এলিজাবেথের চরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি আলাদা কোনো প্রস্তুতি নেননি বলেই জানান অভিনেত্রী। তবে ক্লেয়ার ফয়ের পর একই চরিত্রে অভিনয়ের প্রসঙ্গে বলেন, ‘সবাই ক্লেয়ারকে এতটা ভালোবাসে! আমার তো খুব ভয় হচ্ছে নিজের অভিনয় নিয়ে।’ প্রিন্সেস মার্গারেট চরিত্রে অভিনয় করা হেলেনা বনহ্যাম কার্টার যদিও এতটা নিরুদ্বিগ্ন ছিলেন না। চরিত্রে রূপদানের আগে তাই দ্বারস্থ হয়েছিলেন স্বয়ং প্রিন্সেস মার্গারেটের। হেলেনা বলেন, ‘তিনি আমাকে অনেক পরিচ্ছন্ন থাকার উপদেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি তাঁর মতো করে আঙুলে সিগারেট রাখার উপায়টাও বাতলে দিয়েছেন।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা