kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

জুন হোর বৈষম্যের দুনিয়া

কান চলচ্চিত্র উৎসবে স্বর্ণ পাম জয়ের পর থেকেই আলোচনায় বং জুন হো। দক্ষিণ কোরিয়ার পর আগামীকাল সারা দুনিয়ায় মুক্তি পাচ্ছে তাঁর ছবি ‘প্যারাসাইট’। এ উপলক্ষে পরিচালককে নিয়ে লিখেছেন মামুনুর রশিদ

১০ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জুন হোর বৈষম্যের দুনিয়া

এবার কান চলচ্চিত্র উৎসবের সর্বোচ্চ সম্মাননা স্বর্ণ পাম জিতেছে দক্ষিণ কোরীয় ছবি ‘প্যারাসাইট’। তবে এই প্রথম নয়, পরিচালক বং জুন হোর ছবি বরাবরই বিশ্ব আসরে প্রশংসিত। ‘প্যারাসাইট’-এর গল্প বর্তমান কোরীয় সমাজের শ্রেণিবিভেদ নিয়ে। তাঁর আগের চলচ্চিত্রগুলোতেও বৈষম্যপূর্ণ সমাজব্যবস্থার গল্প উঠে এসেছে। জুন হো সাধারণত সিনেমায় সমাজ নিয়ে নানা বক্তব্য তুলে আনেন। তাঁর আরেক ছবি ‘দ্য হোস্ট’-এ তিনি পরিবেশদূষণের ফলে সামাজিক বিপর্যয়ের চিত্র বর্ণনা করেছেন। পরিচালক অবশ্য নিজের সিনেমাগুলোকে ‘পারিবারিক সিনেমা’ হিসেবে উল্লেখ করেন। বলেন, ব্যক্তিগত জীবনে সমাজ নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন অনুভব করেন। তারই বহিঃপ্রকাশ ঘটে সিনেমাগুলোতে। ‘একজন ফিল্মমেকার বা শিল্পীর দায়িত্ব তিনি যে সময়ে বাস করছেন সেটার গল্প নিজের শিল্পে তুলে ধরা,’ বলেন জুন হো। পরিচালকের সিনেমার বেশির ভাগ চরিত্রই প্রথাগত সামাজিক ব্যবস্থা ও সিস্টেমের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে পারে না। শুধু এই সময়ের নয়, ভবিষ্যৎ দুনিয়ায় বৈষম্যের চিত্র কেমন হবে, সেটাও সিনেমায় তুলে ধরেন তিনি। জুন হো মনে করেন, দিনে দিনে দুনিয়াজুড়েই বৈষম্য আরো বাড়বে, যা ভিন্নভাবে নিজের সায়েন্স ফিকশন ‘স্নোপিয়ার্সার’-এ দেখিয়েছেন। এই সিনেমায় দেখা যায়, পৃথিবীর শেষ কিছু মানুষকে নিয়ে একটি ট্রেন ছুটে চলেছে। সেই ট্রেনও বিভক্ত ধনী-গরিব দুই শ্রেণিতে। এই ছবির আইডিয়া তাঁর মাথায় আসে মূলত ট্রেনযাত্রা নিয়ে ছবি করার ভাবনা থেকে। জুন হো ছোটবেলা থেকেই প্রচুর ট্রেন জার্নি করতেন। পরিচালক হওয়ার পর ঠিক করেন, ট্রেন নিয়ে কিছু একটা করবেন। তবে সেই যাত্রার মধ্য দিয়ে যে বৈষম্য তুলে ধরবেন সেটা ঠিক করেন আরো পরে।

জুন হো এ পর্যন্ত সাতটি ছবি করেছেন। এর মধ্যে আছে দুটি ইংরেজি ছবিও। ‘স্নোপিয়ার্সার’ ছাড়া আরেকটি ‘ওকজা’ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিল কানের প্রতিযোগিতা বিভাগেও। ‘ওকজা’ অবশ্য তিনি করেছিলেন নেটফ্লিক্সের জন্য। এই সময়ের অনেক পরিচালক স্ট্রিমিং সাইটের জন্য ছবি করতে চান না। তবে জুন হো সে দলের নন। ভবিষ্যতে ওয়েব এবং প্রেক্ষাগৃহের জন্য সমান তালে সিনেমা করতে চান তিনি।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা