kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নানা রূপে মেরি

কমেডি, অ্যাকশন, হরর—নানা কিসিমের ছবিতে নিজের পারদর্শিতা দেখিয়ে হলিউড পরিচালকদের বড় ভরসার নাম মেরি এলিজাবেথ উইনস্টিড। আগামীকাল ‘জেমিনি ম্যান’-এর মুক্তি উপলক্ষে অভিনেত্রীকে নিয়ে লিখেছেন হাসনাইন মাহমুদ

১০ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নানা রূপে মেরি

প্রায় দুই দশকের ক্যারিয়ার। এর মধ্যে হলিউডে নানা রূপে দেখা গেছে মেরি এলিজাবেথ উইনস্টিডকে। কিংবদন্তিতুল্য অভিনেত্রী আভা গার্ডনারের বংশধর ৩৪ বছর বয়সী মেরি করেছেন বিভিন্ন ঘরানার ছবি। দর্শকরা আবারও তাঁকে পর্দায় দেখবে সময়ের উইল স্মিথের বিপরীতে। তাঁদের ছবি ‘জেমিনি ম্যান’ মুক্তি পাবে আগামীকাল, যেখানে এক খুনির চরিত্র করেছেন মেরি।

সংস্কৃতিমনা পরিবারে জন্ম হওয়ায় ছোটবেলা থেকেই মঞ্চের সঙ্গে পরিচয়। সিবিএসের ‘টাচড বাই অ্যান অ্যাঞ্জেল’ সিরিজের একটি পর্বে অভিনয় করে ছোট পর্দায় পা রাখেন মেরি। কিছুদিনের মধ্যেই ‘উলফ লেক’ সিরিজে প্রধান চরিত্রে অভিনয়ের জন্য নির্বাচিত হন। জনপ্রিয়তা না পাওয়ায় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সিরিজটি বন্ধ করে দেয়। ব্লকবাস্টার হরর চলচ্চিত্র ‘দ্য রিং’-এর দ্বিতীয় কিস্তিতে অভিনয়ের মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক। তবে দুঃখের ব্যাপার, চূড়ান্ত কাটাছেঁড়ার সময় তাঁর দৃশ্যটাই বাদ পড়ে যায়। একের পর এক দুঃসংবাদের মধ্যে আলোকবর্তিকা হয়ে আসে ‘ফাইনাল ডেস্টিনেশন’-এর তৃতীয় কিস্তি। হরর থ্রিলারধর্মী এই চলচ্চিত্রে ওয়েন্ডি ক্রিস্টেনসন চরিত্রে তাঁর অভিনয় দর্শকরা পছন্দ করে। ৃএরপর একের পর এক ছবি করেন। কোয়েন্টিন টারান্টিনোর ‘ডেথ প্রুফ’, ‘লিভ ফ্রি অর ডাই হার্ড’, ‘স্কট পিলগ্রিম ভার্সেস দ্য ওয়ার্ল্ড’, ‘আব্রাহাম লিংকন দ্য ভ্যাম্পায়ার হান্টার’, ‘সুইস আর্মি ম্যান’ কিংবা ‘টেন ক্লোভারফিল্ড লেন’-এর মতো সমালোচকপ্রিয় চলচ্চিত্রে অনবদ্য অভিনয়ের মাধ্যমে হলিউডে নিজের স্থান পাকাপোক্ত করেন। মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ছবির তালিকাটাও বেশ লম্বা। ‘জেমিনি ম্যান’-এর পর মেরিকে দেখা যাবে সুপারহিরো ছবি ‘বার্ডস অব প্রে’তে। গোথামের নারী খল চরিত্রগুলোকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে ‘বার্ডস অব প্রে’র কাহিনি। এই চলচ্চিত্রে ডিসি কমিকসের অন্যতম জনপ্রিয় খল দ্য হান্ট্রেস চরিত্রে দেখা যাবে মেরিকে। ট্রেলারে মার্গট রবির হার্লে কুইনের সঙ্গে তাঁর রসায়নটা এরই মধ্যে দর্শকদের মন জয় করেছে। চলচ্চিত্রটির হান্ট্রেস চরিত্রটি সৃষ্টি হয়েছে ১৯৮৯ সালের ডিসি কমিকসে আসা হেলেনা বার্তিনেল্লিকে অনুসরণ করে। চরিত্রটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে অভিনেত্রী বলেন, ‘হেলেনা একই সঙ্গে রসিক, অদ্ভুত ও ভয়ংকর। এটা কোনো একরৈখিক চরিত্র নয়। এই চরিত্র করতে গিয়ে আমাকে হান্ট্রেসের মধ্যেই হারিয়ে যেতে হয়েছিল।’

‘বার্ডস অব প্রে’র পরপরই নেটফ্লিক্সে মুক্তি পাবে তাঁর আরেকটি চলচ্চিত্র ‘কেট’। থ্রিলারধর্মী এই চলচ্চিত্রে তাঁর বিপরীতে আছেন ‘ব্রেকিং ব্যাড’ খ্যাত অ্যারন পল। তবে সবার আগে অবশ্যই আসছে ‘জেমিনি ম্যান’। অস্কারজয়ী পরিচালক অ্যাং লির চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়েছে হেনরি বোগান নামের এক আততায়ীকে ঘিরে। অবসরের প্রাক্কালে তাঁকে মুখোমুখি হতে হয় তাঁরই এক যুবক বয়সী ক্লোনের, হেনরিকে হত্যা করাই যার উদ্দেশ্য। দুজন ‘একই’ কিন্তু আলাদা খুনির লড়াইয়ে ধীরে ধীরে উন্মোচিত হতে থাকে আরো গভীর ষড়যন্ত্রের জাল। চলচ্চিত্রটিতে উইল স্মিথ ও মেরি এলিজাবেথের পাশাপাশি দেখা যাবে ক্লাইভ ওয়েন ও বেনেডিক্ট ওংকেও। ১৯৯০ সালে চলচ্চিত্রটি নির্মাণের প্রথম পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হলেও প্রযুক্তিগত সীমাবদ্ধতার কারণে পিছিয়ে যায় অনির্দিষ্টকালের জন্য। অবশেষে আলোর মুখ দেখছে বহুল প্রতীক্ষিত ছবিটি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা