kalerkantho

সোমবার । ২৬ আগস্ট ২০১৯। ১১ ভাদ্র ১৪২৬। ২৪ জিলহজ ১৪৪০

আরমীন মূসা লাইভ

২৪ জুলাই আরমীন মূসার জন্মদিন। এ উপলক্ষে নিজ ইউটিউব চ্যানেলে একটি লাইভ ভিডিও অ্যালবাম প্রকাশ করবেন গায়িকা। তাঁর আরো কাজের খবরসহ লিখেছেন রবিউল ইসলাম জীবন

১১ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



আরমীন মূসা লাইভ

“আমার এবারের জন্মদিন উদ্‌যাপনের জন্য কিছু একটা করার চিন্তা থেকেই লাইভ ভিডিও অ্যালবামের আইডিয়াটা মাথায় আসে। এতে আমার সঙ্গে থাকছেন আমার ব্যান্ডের সদস্যরা। তাই অ্যালবামের নাম দিয়েছি ‘দি আরমীন মূসা ব্যান্ড-লাইভ ফ্রম স্পেস’। ৯টি গানের সঙ্গে কিছু কবিতা আবৃত্তির সমন্বয়ে এই অ্যালবাম। দর্শক-শ্রোতাদের বৈচিত্র্য দিতেই এ আয়োজন। আমার ওয়ার্ক স্টেশনে এরই মধ্যে দুটি সেশনে অ্যালবামটির রেকর্ডিং শেষ হয়েছে”—বলছিলেন আরমীন মূসা। আগামী তিন মাস প্রতি বৃহস্পতিবার রাত ১২টায় অ্যালবামের একটি পর্ব তাঁর ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ করা হবে। আজ আসবে প্রমোশনাল ভিডিও। আরমীন জানান, লাইভ কনসার্টের শুরুতে যেমন সবাইকে আমন্ত্রণ জানানো হয়, এই প্রমোশনাল ভিডিটিও তেমনই। এর পরই আসতে থাকবে মূল অ্যালবাম। গানগুলোর দুটি কাভার, বাকিগুলো তাঁর নিজেরই। দুটি গেয়েছেন ব্যান্ডের সদস্যরা। আপাতত এ নিয়েই ব্যস্ত আরমীন! তাই বলে থেমে নেই তাঁর কয়ার দল ‘ঘাসফড়িং’। দলটির প্রথম একক অ্যালবাম ‘কিছু কথা কিছু গান’-এর কাজ প্রায় শেষ। ঈদের পরই প্রকাশ করা হবে। ‘আমি সাধারণত ইংরেজিতে গান লিখি, ইংরেজিতে কবিতা পড়ি। কিন্তু এটা হচ্ছে বাংলা। এখানে আটটি বাংলা গান থাকছে। টাইটেলটি মৌলিক, বাকিগুলো আমাদের পছন্দের, ভালো লাগার। এর মধ্যে থাকছে ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’, অর্ণব, লালন ফকির প্রমুখর গান। নিজেদের মতো করে গানগুলো কয়ার করেছি।’

মাস দুয়েক আগে মুক্তি পাওয়া কলকাতার চলচ্চিত্র ‘ভূত চতুর্দশী’র ‘ভয় করছে’ গানটিতে কণ্ঠ দেন তিনি, যা শুনে সত্যি সত্যি ভয় পাচ্ছেন শ্রোতারা! কারণ ভূত নিয়ে করা চলচ্চিত্রের এই গানটিতে ভূতের ভয় ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।  পরে আলাদাভাবে গানটির ভিডিও নির্মাণ করেন তানিম রহমান অংশু। ভিডিওতে আরমীনের মাথা কাটা যায়! রিতম সেনের কথায় গানটির সংগীত পরিচালনা করেছেন ইন্দ্রদীপ দাশগুপ্ত। আরমীন বলেন, ‘ইন্দ্রদীপ দাশগুপ্ত একদিন হোয়াটসঅ্যাপে নক করে গানটির কথা বলেন। এ রকম গান আগে কখনো গাইনি। তাই শুরুতে টেনশনে ছিলাম। প্রকাশের পর দেখি সবাই পছন্দ করছেন। সবচেয়ে বড় কথা, গানটিতে সবাই বিনোদন পাচ্ছেন।’

কলকাতার চলচ্চিত্রে আরমীনের অভিষেক অবশ্য ২০১১ সালে পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘জিয়ো কাকা’য়। এতে ভবা পাগলার ‘নদী ভরা ঢেউ’ গানটির রিমিক্স ভার্সনে কণ্ঠ দেন তিনি। ২০১৬ সালে কণ্ঠ দেন অরিন্দম শীল পরিচালিত ‘ঈগলের চোখ’-এর ‘রাতের মাঝার-এ’। এতে অভিনয় করেছেন জয়া আহসান, যা বাড়তি আনন্দ দিয়েছে আরমীনকে, ‘কলকাতার চলচ্চিত্র। তার ওপর নায়িকা জয়া আহসান, গায়িকা আমি। স্বাভাবিকভাবেই বিষয়টি খুব এনজয় করেছি। গানের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে সবাই একসঙ্গে মজা করেছি।’

কলকাতার চলচ্চিত্রে তিনটি গান করলেও নিজ দেশের চলচ্চিত্রে এখন পর্যন্ত মাত্র একটি গানের সুযোগ পেয়েছেন!  গিয়াসউদ্দিন সেলিমের ‘স্বপ্নজাল’-এর সেই গানটি হলো ‘এমন করে বলছি’। শিল্পী হেসে বলেন, ‘যাঁরা ছবি নির্মাণ করেন আমি হয়তো তাঁদের প্রিয় নই, তাই আমাকে দিয়ে গাওয়ান না!’ পরক্ষণেই যোগ করেন, ‘আমার কণ্ঠটি আসলে চলচ্চিত্রে প্লেব্যাকের মতো না! তার পরও এক্সপেরিমেন্টাল কোনো গান হলে যে সুযোগ পাচ্ছি তাতেই আনন্দিত!’

কলকাতায় এখনো একক শো করতে পারেননি, যা আরমীনের খুব ইচ্ছা। ২০১৬ সালে ভারতীয় জ্যাজ ব্যান্ড ‘এক বাঙালীর উপাখ্যান’-এর সঙ্গে গান করতেন আরমীন। তখন ব্যান্ডটির হয়ে ঢাকার পাশাপাশি দিল্লি ও কলকাতায় ১০টি শো করেছেন। গানগুলোর কথা, সুর ও সংগীত মৈনাক নাগ চৌধুরীর। ‘কলকাতার ছবিতে গাওয়ার অভিজ্ঞতা দারুণ। কিন্তু সেখানকার স্টেজে আমি কিংবা ব্যান্ড এখনো গাইতে পারেনি। এটা আমার অনেক দিনের আশা’—বললেন তিনি।

এ পর্যন্ত তিনটি একক অ্যালবাম—‘আয় ঘুম ভাঙাই’ (২০০৮), ‘ফাইন্ডিং ফল’ (২০১৩) এবং ‘সিমুলটেনিয়াসলি’ (২০১৫) প্রকাশ করেছেন আরমীন মূসা। অচিরেই নতুন অ্যালবাম তৈরিতে হাত দেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

মন্তব্য