kalerkantho

রবিবার । ২১ জুলাই ২০১৯। ৬ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৭ জিলকদ ১৪৪০

তাঁদের কত টাকা!

‘আমেরিকানস’ রিচেস্ট সেলফ-মেড ওম্যান’ তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস ম্যাগাজিন। সেখানে আছেন ছয় গায়িকাও। তাঁদের টাকা-পয়সার হিসাব জানাচ্ছেন লতিফুল হক

২০ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তাঁদের কত টাকা!

রিহানা

কয়েক বছর ধরেই গানে অনিয়মিত রিহানা। সর্বশেষ অ্যালবাম প্রকাশ পেয়েছে তিন বছর আগে। এই বিরতিতে তিনি যেটা মন দিয়ে করেছেন, সেটা হলো ব্যবসা। পোশাক, প্রসাধনসামগ্রী থেকে নানা কিসিমের ব্যবসা আছে ক্যারিবীয় এই গায়িকার। তাই গান না করেও তাঁর সম্পদ বেড়েছে অনেক। ৬০ কোটি ডলার [পাঁচ হাজার কোটি টাকার বেশি] আয় নিয়ে দুনিয়ার সবচেয়ে সম্পদশালী গায়িকা এখন তিনিই। অথচ এক দশক আগেও রিহানার এত  আয় ছিল না। ২০১০ সালে ব্যবসা শুরুর পর থেকে আয়    বেড়েছে কয়েক গুণ।

 

ম্যাডোনা

বয়স ৬০। আগের মতো দুনিয়াজুড়ে ঘুরে ঘুরে কনসার্ট করতে পারেন না। গানেও নিয়মিত নন। কিন্তু ম্যাডোনা তো একজনই। স্পন্সর, গানের স্বত্বসহ নানা সূত্র থেকে এখনো প্রচুর আয় হয় গায়িকার। ৫৭ কোটি ডলার [চার হাজার ৮০০ কোটি টাকা প্রায়] আয় নিয়ে তিনি দ্বিতীয় ধনী গায়িকা। ফোর্বসের হিসাবে পুরো ক্যারিয়ারে গান থেকে এক বিলিয়ন ডলারের বেশি আয় করেছেন ম্যাডোনা। কিছুদিন আগেই প্রকাশিত হয়েছে তাঁর নতুন অ্যালবাম ‘ম্যাডাম এক্স’, যা তাঁর আয় আরো বাড়িয়ে দেবে নিঃসন্দেহে।

 

সেলেন ডিওন

৪৫ কোটি ডলার [প্রায় তিন হাজার ৮০০ কোটি টাকা] আয় নিয়ে তৃতীয় ধনী গায়িকা তিনি। আপাতদৃষ্টে নীরব মনে হলেও একটু খোঁজখবর নিলেই জানা যায় কনসার্ট নিয়ে কতটা ব্যস্ত তিনি। এখনো তাঁর নতুন ট্যুরের তারিখ ঘোষণা হওয়ামাত্র বেশির ভাগ টিকিট বিক্রি হয়ে যায়।

 

বিয়ন্সে

যমজ সন্তানের জন্মদান উপলক্ষে দীর্ঘ বিরতিতে ছিলেন বিয়ন্সে, যা তাঁর আয়-উপার্জনে প্রভাব ফেলেছে। না হলে তিনি কোনোভাবেই তালিকার চারে থাকতেন না। বিয়ন্সের আয় ৪০ কোটি ডলার [প্রায় তিন হাজার ৪০০ কোটি টাকা]। গায়িকার এই আয় অ্যালবাম বিক্রি, কনসার্ট আর নানা ধরনের ব্যবসা থেকে।

 

বারবারা স্ট্রাইস্যান্ড

অনেকের হয়তো তাঁর কথা মনে নেই। কিন্তু ৭৭ বছর বয়সেও তিনি নতুনদের ভালোই চ্যালেঞ্জ জানাতে জানেন। জনপ্রিয় এই মার্কিন গায়িকার আয় ৪০ কোটি ডলার [প্রায় তিন হাজার ৪০০ কোটি টাকা]। অস্কাক, গ্র্যামি, টনির মতো মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কারজয়ী গায়িকা নিজের বিভিন্ন কাজ থেকে এখনো প্রচুর অর্থ পেয়ে থাকেন।

 

জেনিফার লোপেজ

রিহানার মতো জেনিফার লোপেজও ব্যবসায় নেমে সমান দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। অভিনয়, গান, ব্যবসা—সবখানেই সফল হয়েছেন তিনি। তাঁর সম্পদেরও পরিমাণ ৪০ কোটি ডলার [প্রায় তিন হাজার ৪০০ কোটি টাকা]। এ পর্যন্ত তাঁর অ্যালবাম বিক্রি হয়েছে চার কোটিরও বেশি, সিনেমা ব্যবসা করেছে প্রায় তিন বিলিয়ন।

মন্তব্য