kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

ফেসবুক থেকে

১৩ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফেসবুক থেকে

দ্য রিটার্নড

দ্য রিটার্নড [২০১২-]

ফ্রান্স

মিস্ট্রি, ড্রামা, ফ্যান্টাসি

♦  ব্যাধি, বার্ধক্য, দুর্ঘটনা, আত্মহত্যা—আমাদের প্রিয়জনদের চিরতরে পৃথিবী থেকে হারিয়ে ফেলার কারণ। এগুলো মানুষের জীবনের চরম সত্য মৃত্যুকে নিয়ে আসে। তবু কাছের মানুষকে হারিয়ে ফেলার পরও আমাদের জীবন থেমে থাকে না, কিছুদিন মন্থর হলেও পরে তা নিজস্ব গতিতেই চলতে থাকে। সঙ্গে থাকে মৃত আপনজনের খণ্ড খণ্ড স্মৃতি। কিন্তু যখন তাদের স্মৃতি ম্লান হয়ে যায় তখনই যদি আবার তারা ফিরে আসে, তাহলে কেমন হবে সেটা? ফ্রান্সের পাহাড়ঘেরা একটা শহরে এই ব্যাপারটাই হচ্ছে। রহস্যময়ভাবে বাসদুর্ঘটনায় মৃত ক্যামিল, আত্মহত্যাকারী ড্রামার সিমন, সিরিয়াল কিলার সার্জ, পঁয়ত্রিশ বছর আগে নিহত কিশোর ভিক্টরসহ আরো কয়েকজন ফিরে আসে। কিন্তু কিভাবে তারা ফিরে এলো কিছুই তাদের মনে নেই। এমনকি তাদের মারা যাওয়ার কোনো স্মৃতিই তাদের নেই। কী করবে তারা এখন? তাদের কি আপনজনেরা আবার আগের মতো করে গ্রহণ করতে পারবে?

     এমন অসাধারণ অন্য রকম স্টোরিটেলিং আমি এখন পর্যন্ত অন্য কোনো সিরিয়ালে পাইনি। লোকেশনের কথা নাই বা বললাম, সেটা আপনারা দেখলেই বুঝতে পারবেন। এর সাউন্ড ট্র্যাকটা পুরোপুরি স্বকীয়। একেবারে ঝিম ধরিয়ে দেওয়ার মতো। আমার মনে হয়, ফরেন সিরিজ যারা দেখে তাদের প্রায় সবারই এই সিরিজটা পরিচিত। যারা দেখেনি তাদের জন্য গট [গেম অব থোন্স] পরবর্তী সময় কাটানোর অসাধারণ একটা মাধ্যম হতে পারে এটি।

তাজিম রহমান নীশিথ

সিরিয়ারখোর গ্রুপের পোস্ট

মন্তব্য