kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

অন্য এক দুনিয়ার গল্প

১৩ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অন্য এক দুনিয়ার গল্প

অভিনেত্রীর তালিকায় আছেন হুমা কুরেশি, পরিচালকদের মধ্যে দীপা মেহতা। সব মিলিয়ে ‘নেটফ্লিক্স’-র সিরিজ ‘লায়লা’ নিয়ে আগ্রহের শেষ নেই। লিখেছেন মামুনুর রশিদ

 

গত বছর নেটফ্লিক্স ইন্ডিয়া নিয়ে এসেছিল ডিস্টোপিয়ান হরর সিরিজ ‘ঘুল’। ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাওয়া সেই সিরিজের রেশ ধরেই আসছে ‘লায়লা’। দীপা মেহতা, শংকর রমণ ও পবন কুমার নির্দেশনা দিয়েছেন ছয় পর্বের সিরিজটির। ২০১৭ সালে প্রকাশিত উপন্যাস ‘প্রয়াগ আকবর’ সিরিজের মূল প্রেরণা। ‘লায়লা’ এক নিকট ভবিষ্যৎ দুনিয়ার গল্প বলে, যেখানে বিপক্ষ কোনো রাজনৈতিক দল নেই। গোত্র, ধর্ম আর আর্থিক অবস্থানের বিচারে গোটা মানব সমপ্রদায় বিভিন্ন গোষ্ঠীতে বিভক্ত হয়ে যায়। গল্পের নায়িকা শালিনী ভালোবেসে রিজ নামের এক মুসলিম ছেলেকে বিয়ে করে ধর্মান্তরিত হয়। তাদের মেয়ে লায়লা তিন বছর বয়সে হারিয়ে যায়, আকস্মিকভাবে মারা যায় রিজ। এ ঘটনার প্রায় ১৬ বছর পর শালিনী তার সেই ছোট্ট মেয়ে লায়লাকে খুঁজতে বের হয়। কিভাবে? তা নিয়েই বাকি গল্প।

‘লায়লা’য় শুদ্ধতাই হলো জীবনধারণের একমাত্র উপায়। যারা বিপথগামী তাদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। মূলত কট্টর হিন্দুত্ববাদের বিষয়টিই তুলে ধরেছে এই সিরিজ। এ বিষয়ে অবশ্য এটিই প্রথম ভারতীয় সিরিজ নয়। গত বছরের ‘ঘুল’-এও উগ্রবাদের বিষয়টি উঠেছিল সূক্ষ্মভাবে। তবে সে সময় সিরিজের অভিনেত্রী রাধিকা আপ্তেকে নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে বিভিন্ন ট্রল ভাইরাল হওয়ায় এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি আড়ালেই পড়ে গিয়েছিল। তবে এ ক্ষেত্রে তেমনটি হয়নি। সিরিজটিতে আর্যবার্তা বা হিন্দুত্ববাদে কিভাবে অন্যান্য ধর্মের মানুষকে হেয় চোখে দেখা হয়, সেটা দেখানো হয়েছে। তবে ট্রেলার প্রকাশিত হওয়ার পর অনেক উগ্রবাদী গোষ্ঠী নাখোশ সিরিজটি নিয়ে। নানা কটু মন্তব্যের পাশাপাশি তারা ‘লায়লা’র পাত্র-পাত্রীদের ব্যক্তিগত আক্রমণও করছে। বিশেষ করে কেন্দ্রীয় চরিত্র শালিনী করা হুমা কুরেশীকে। তিনি মুসলিম হওয়ায় উগ্রবাদীদের সহজ টার্গেটে পরিণত হয়েছেন। তবে তা নিয়ে খুব একটা চিন্তিত নন অভিনেত্রী, বরং উচ্ছ্বসিত তাঁর চরিত্রটি নিয়ে। তাঁর চরিত্রটিতে সাহসিকতা, আদর্শ আর আশাবাদের এক দারুণ মিশ্রণ ঘটেছে বলে মনে করেন। এ ধরনের খুব সিরিয়াস চরিত্রই তাঁর বেশি পছন্দ। তা অবশ্য হওয়ারই কথা, কারণ হুমার ক্যারিয়ারের শুরুটাই হয়েছিল ‘গ্যাংস অব ওয়াসিপুর’-এর মতো সিনেমা দিয়ে। এরপর ‘দেড় ইশকিয়া’, ‘বদলাপুর’-এর মতো সিনেমাগুলোতে দৃঢ় চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গেছে। তবে এত এত চরিত্রে অভিনয় করেও এই অভিনেত্রী মনে করেন, শালিনী চরিত্রটি ক্যারিয়ারে ভিন্ন মাত্রা দেবে। হুমা ছাড়াও এই সিরিজের অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাবে সিদ্ধার্থ, রাহুল খান্না, সঞ্জয় সুরির মতো অভিনেতাদের। আগামীকাল থেকে ‘নেটফ্লিক্স’-এ দেখা যাবে সিরিজটি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা