kalerkantho

রবিবার। ১৮ আগস্ট ২০১৯। ৩ ভাদ্র ১৪২৬। ১৬ জিলহজ ১৪৪০

সোনার পাহাড়ে সৌমিত্র তনুজা

৫ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সোনার পাহাড়ে সৌমিত্র তনুজা

তিন দশক পর বাংলা ছবিতে তনুজা, সঙ্গে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের পরিচালনায় ‘সোনার পাহাড়’-এ দেখা যাবে তাঁদের। আগামীকাল মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ছবিটি নিয়ে লিখেছেন নাসরিন হক

 

ছবিতে যদিও তনুজা আর সৌমিত্র চট্টোপাধ্যয় আছেন, তবে গল্পটা ঠিক তাঁদের নয়। গল্পটা শ্রীজাত বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এই খুদে অভিনেতাই ‘সোনার পাহাড়’-এর মূল চরিত্র। তার সঙ্গে মায়ের সম্পর্কের গল্প নিয়েই ছবি। অনেকেই ছবির গল্প শুনে বলেছিলেন, এটা পরমব্রতরই জীবনী। পরিচালক অবশ্য সেটা একেবারে উড়িয়ে দিচ্ছেন না, ‘কথাটা পুরোপুরি ভুল নয়। কারণ এই ছবিতে নিশ্চয়ই এমন কিছু উপাদান আছে, যা আমার আর মায়ের জীবন থেকে অনুপ্রাণিত।’ পরিচালনার সঙ্গে ছবিতে অভিনয়ও করেছেন পরমব্রত, সঙ্গে আছেন যিশু সেনগুপ্ত। এই সময়ে প্রায় সব বাংলা ছবিতেই চেনা মুখ যিশু। তাঁকে কি জনপ্রিয়তার কথা ভেবেই নেওয়া? ‘একেবারেই না। শুরুতে যিশুর চরিত্রটা আমার করার কথা ছিল, আমারটা সৃজিতের [মুখোপাধ্যায়]। কিন্তু সৃজিতকে না পাওয়ায় সব গোলমাল হয়ে যায়। তখনই যিশুর কথা ভাবি। গল্পটা ওকে বলার পর ও অঝোরে কেঁদে ফেলে।’

ছবিতে অনেক দিন পর আছেন ‘তিন ভুবনের পাড়ে’র জুটি সৌমিত্র-তনুজা। প্রায় তিন দশক পর বাংলায় ছবি করতে এসে উত্তেজিত, ‘এত বছর করার মতো কোনো চিত্রনাট্য পাইনি। বাংলা থেকে কয়েকজন আগে চিত্রনাট্য পাঠিয়েছে, কিন্তু পরিচালকের ভিশনই ধরতে পারিনি। হিন্দিতেও ভালো কিছু পাইনি। পরমব্রত তরুণ হতে পারে, কিন্তু ওর গল্প বলার স্টাইল, চরিত্র বিশ্লেষণ করার ক্ষমতা আমার ভালো লেগেছে।’

এত দিন পর বাংলায় ছবি করতে এলে স্বভাবতই নস্টালজিক হয়ে যাওয়ার কথা, কিন্তু তনুজা এসব পাত্তা দিতে চান না, ‘সৌমিত্রর সঙ্গে যোগাযোগ আছে। বছর কয়েক আগে ওর জন্মদিনেও এসেছিলাম। তবে পুরনো দিনের কথা বলতে চাই না। যে সময় পেরিয়ে এসেছি, সেটা স্মৃতিতেই থাক না। সব কিছু নিয়ে বলতে নেই। আমি কখনো আত্মজীবনীও     লিখব না।’

মন্তব্য