kalerkantho

শনিবার । ২৪ আগস্ট ২০১৯। ৯ ভাদ্র ১৪২৬। ২২ জিলহজ ১৪৪০

রোড টু ফাইনাল

জার্মানি, স্পেন, আর্জেন্টিনা, পর্তুগাল—একে একে বাদ পড়েছে বিশ্ব ফুটবলের বড় এই দলগুলো। তবু জমে উঠেছে বিশ্বকাপ। ফাইনালে কে খেলবে, কিভাবে যাবে ফাইনালে, সেসব জানিয়েছেন চার শোবিজ তারকা। লিখেছেন মীর রাকিব হাসান

৫ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



রোড টু ফাইনাল

তুরুপের তাস বেলজিয়াম

 

জাহিদ হাসান

গ্রুপ পর্বে দুর্দান্ত খেলেছে ফ্রান্স। দ্বিতীয় পর্বে আমার পছন্দের দল আর্জেন্টিনাকে হারাল। ফ্রান্সের সম্ভাবনা রয়েছে ফাইনালে যাওয়ার। তারকায় ঠাসা একটি দল। তবে ফ্রান্সের চেয়ে কিছুটা এগিয়ে উরুগুয়ে। রোনালদোর পর্তুগালকে হারাল তারা। আর উরুগুয়ে দলে এখন বেশ কয়েকজন সিনিয়র প্লেয়ার আছে, যাদের সামর্থ্য আছে বিশ্বকাপ জেতানোর। কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হবে তারা। ব্রাজিল মেক্সিকোকে হারাল। কিন্তু সত্যি বলতে, ব্রাজিল কিংবা আর্জেন্টিনা—দুই দলের খেলায় আগেকার সেই ছন্দ পাইনি। ব্রাজিলের দৌড় খুব বেশি কি না বলাটা মুশকিল। বেলজিয়ামের সঙ্গে তাদের পেরে ওঠার সম্ভাবনা কম।

এবার তুরুপের তাস হবে বেলজিয়াম। ম্যাচে ২-০ গোলে পিছিয়ে পড়েও জাপানকে ৩-২ গোলে হারিয়ে তাদের সম্ভাবনা আরো উজ্জ্বল করল। জাপানের চেয়ে শক্তি ও সামর্থ্যের ওপর ভিত্তি করে বেলজিয়াম অনেক এগিয়েই ছিল।

কোনো অঘটন না ঘটলে সেমিফাইনালে বেলজিয়াম নিশ্চিত। রাশিয়াকে নিয়ে বাজি ধরব, নিজেদের মাঠে ওরা যেভাবে খেলছে! ওদের সেমিফাইনাল নিশ্চিত।

ভালো খেললেও ক্রোয়েশিয়ার সম্ভাবনা নেই ফাইনালে খেলার। সম্ভাবনা জাগালেও ইংল্যান্ডে ভরসা নেই। তবে ওরা সেমিতে যাচ্ছে। ফাইনালে যাওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু শেষরক্ষা হবে বলে মনে হয় না।

 

ব্রাজিল নেইমারনির্ভর দল না

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী

পত্রিকায় আর্জেন্টিনার ব্যাপারে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলাম, দ্বিতীয় রাউন্ডে ফ্রান্স বা পরের দিকে স্পেনের সঙ্গে খেলা না পড়লে আর্জেন্টিনার সম্ভাবনা আছে। কথাটা বলে অনেকেরই চক্ষুশূল হয়েছিলাম। অনেকে তেড়ে এসেছিলেন আমার দিকে, ‘দ্বিতীয় রাউন্ডে ফ্রান্সের সঙ্গে আর্জেন্টিনার খেলা পড়ে কেমনে?’ গ্রুপে দ্বিতীয় হইতে পারে এটা অনেকেই ভাবতে চান নাই। দ্বিতীয় হইল এবং ফ্রান্সের সঙ্গেই বিপদটা ঘটল। বলছি না যে আমি খুব ভবিষ্যৎ দেখনেওয়ালা লোক। তাইলে তো নিজের ভবিষ্যৎই দেখতাম। হা হা হা।

এবারের বিশ্বকাপ ‘রক্ষণশিল্পের চরম উত্কর্ষে’র বছর। এটা কেবল রক্ষণভাগের চার বা তিনজনের কথা মাথায় রেখে বলিনি, মাঝমাঠের ইঞ্জিনের কথা মাথায় রেখে বলছি। আজকাল মাঝমাঠ খালি আক্রমণ সাজায় না, অন্যের আক্রমণের লাইফলাইনটাও কেটে দেয়। আমি ভীষণ খুশি রক্ষণশিল্পের উন্নয়নে। একটা গোল দেওয়া আর একটা গোল ঠেকানো একই মহিমায় মহিমান্বিত। গোল দেওয়াটাকে অনেক তো গ্ল্যামারাইজ করা হলো। এবার গোল নস্যাৎ করাটাকে একটু গ্ল্যামার দেই আসেন।

ব্রাজিল-সুইজারল্যাল্ড ম্যাচের আগে নাগরিক টিভিতে বলছিলাম, ব্রাজিলকে এখনই চ্যাম্পিয়ন ধরে নেবেন না। আগে দেখেন সুইজারল্যান্ডের সঙ্গে জিততে পারে কি না। জিতে নাই, ড্র করেছিল। সাহস করে আরেকটা কথা বলেছিলাম, ব্রাজিল সামনের রাউন্ডে গিয়ে বেলজিয়ামের মুখে পড়লে ওই খেলায় যে জিতবে, সে-ই ওয়ার্ল্ড কাপ চ্যাম্পিয়ন। এখন তো আমরা জেনেছি, কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের মুখোমুখি হবে ব্রাজিল।

নেইমারবিষয়ক কথা বলি। মনে রাখতে হবে, সে এখন তার সেরা ফর্মে নাই। ইনজুরির পর সময় লাগে। টাফ ট্যাকল মোকাবেলা করেই সে বড় লীগ মাতিয়ে চলেছে। শেষ কথা হলো, ব্রাজিল এবার একদমই নেইমারনির্ভর দল না। সুতরাং চিন্তার কিছুই নাই। কিন্তু তার মানে বলছি না ব্রাজিল অজেয়। ভবিষ্যদ্বাণী না মিললে আমার কিছু করার নাই। আপনি আমাকে বিশ্বাস করছেন কেন?

 

ব্রাজিল ও রাশিয়ার পক্ষে বাজি

আঁখি আলমগীর

প্রিয় দল হিসেবে চাইব ব্রাজিল কাপ জিতুক। কিন্তু পথটা কঠিন। বেলজিয়াম কিংবা ফ্রান্স-উরুগুয়ের মতো দলকে হারাতে হবে। এবার কিছুই বলা যায় না। আমি যত দিন ধরে খেলা দেখছি, সবচেয়ে আনপ্রেডিক্টেবল খেলা হচ্ছে এবার। কে যে কাকে হারায় বলা যায় না। ফ্রান্স ও বেলজিয়াম রীতিমতো উড়ছে। তবে গত ম্যাচে ব্রাজিল অসাধারণ খেলেছে। নেইমার ফর্মে ফিরেছে। এসব আশা দেখায়। আর ওই দিক থেকে ফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে রাশিয়ার। নিজেদের দেশে খেলা। প্রথম রাউন্ড ও শিরোপাপ্রত্যাশী স্পেনকে হারিয়ে তারা ভালো কিছুর স্বপ্ন দেখতেই পারে। ইংল্যান্ড আজ ভালো খেলে তো কাল খারাপ। আমি ব্রাজিল ও রাশিয়ার পক্ষে বাজি ধরতে পারি।

 

ফাইনালে গেলে জিতবে ব্রাজিলই

জ্যোতিকা জ্যোতি

প্রিয় দল ব্রাজিলের জয়ে যেমন খুশি হয়েছি, তেমনি জাপান হারায় দুঃখ পেয়েছি। বিশ্ব ফুটবলে আমাদের এশিয়ার পরাশক্তি জাপান। একটা অন্য রকম টান আছে জাপানের জন্য। ওরা জয়ী হওয়ার মতোই খেলেছিল। খুব খারাপ লেগেছে ওদের জন্য। ব্রাজিলের সামনের বাধা বেলজিয়াম। এই বিশ্বকাপের বিচারে আমি বেলজিয়ামকেই এগিয়ে রাখব। দুর্দান্ত খেলছে ওরা। বেলজিয়াম বাধা পেরোতে পারলে ব্রাজিলের সামনে পড়বে উরুগুয়ে বা ফ্রান্স। সবাই কঠিন প্রতিপক্ষ। কিন্তু এবারের বিশ্বকাপ নিয়ে আগাম কিছু বলা মুশকিল। যেমনই খেলুক, ব্রাজিল তাদের কাঙ্ক্ষিত জয় তো তুলে নিচ্ছে। ওদিক থেকে ইংল্যান্ডেরও সম্ভাবনা রয়েছে ফাইনাল খেলার। ব্রাজিল যদি বেলজিয়ামকে হারাতে পারে, তাহলে জোর দিয়ে বলতে পারব, এবার ফাইনাল জিতবে ব্রাজিলই।

ছবি কৃতজ্ঞতা : প্রিয় ও নাটক ফুটবল ফারুক

মন্তব্য