kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৯ ডিসেম্বর ২০২১। ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

দুই গুণ্ডা এক নর্তকী

ভালোবাসা দিবসের ছবি হিসেবে কাল মুক্তি পাচ্ছে \'গুণ্ডে\'। অ্যাকশন রোমান্টিক এই ছবির পটভূমি বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ। আরো চমকপ্রদ তথ্য হলো, ছবিটি পশ্চিমবঙ্গে বাংলাতেই মুক্তি পাচ্ছে। রণবীর সিং, অর্জুন কাপুরের সঙ্গে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া অভিনীত ছবিটি নিয়ে লিখেছেন অনন্য রেজা করিম

   

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুই গুণ্ডা এক নর্তকী

আলী আব্বাস জাফর আগে আর মাত্র একটি ছবি নির্মাণ করেছেন, 'মেরে ব্রাদার কি দুলহান'। 'গুণ্ডে' তাঁর দ্বিতীয় ছবি। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ খুব কাছ থেকে দেখেছেন জাফরের বাবা। যুদ্ধের প্রায় পুরোটা সময় তিনি বাংলাদেশে ছিলেন। যুদ্ধকালীন নানা ঘটনা বিভিন্ন সময়ে ছেলেকে বলেছেন। বাবার বলা সেসব ঘটনা জাফরকে আলোড়িত করত। সেই আলোড়ন থেকেই নির্মাণ করেছেন 'গুণ্ডে'।

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে বাবা-মাকে হারায় বিক্রম ও বালা। প্রাণ বাঁচাতে ভারতে পাড়ি জমায় অনাথ এই দুই বাংলাদেশি। একসময় কিশোর অপরাধী হিসেবে নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়ে তারা। অপরাধীদের অস্ত্রবহন দিয়ে অপরাধজীবনের শুরু। এরপর কয়লা চুরি ও বিক্রি শুরু করে তারা। এভাবে ক্রমেই অন্ধকার জগতের অপ্রতিদ্বন্দ্বী অপরাধী পরিচিত হয়ে ওঠে তারা। কলকাতার নাইট ক্লাবের নর্তকী নন্দিতার প্রেমে পড়ে বিক্রম ও বালা।

দুই প্রেমিকের কাণ্ডকারখানায় বিব্রত হলেও নন্দিতা একসময় দুজনের প্রতিই দুর্বল হয়ে পড়ে। ওদিকে বিক্রম ও বালাকে আইনের আওতায় আনতে মরিয়া হয়ে ওঠে কলকাতার জাঁদরেল পুলিশ কর্মকর্তা সত্যজিৎ সরকার। তাদের পাকড়াও করতে নন্দিতার প্রতি দুজনের দুর্বলতাকে কাজে লাগাতে চায়। একসময় পরস্পরের মুখোমুখি দাঁড়ায় দুই প্রেমিক, পরস্পরের ঘোরতর শত্রু হয়ে ওঠে। পরিচালক আলী আব্বাস জাফর এক সাক্ষাৎকারে বলেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকালীন ঘটনাবলি সেলুলয়েডে তুলে ধরতে তাঁর বাবার বাস্তব অভিজ্ঞতাগুলোকে কাজে লাগিয়েছেন তিনি। সত্তরের দশকের কলকাতার চিত্র ফুটিয়ে তুলতে পাত্র-পাত্রীদের সাজ-পোশাক ও আচরণে ব্যাপক পরিবর্তন আনতে হয়েছে। হিন্দিতে নির্মিত হলেও 'গুণ্ডে' ছবিতে পশ্চিমবঙ্গের বাঙালি সমাজের চিত্রটা তুলে ধরা হয়েছে। এ ছবির বড় অংশের শুটিং হয়েছে কলকাতার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গাসহ আশপাশের মফস্বল এলাকায়। ছবির দুটি প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন রণবীর সিং ও অর্জুন কাপুর। নন্দিতার চরিত্রে আছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। ইরফান খান পুলিশ অফিসার সত্যজিৎ। বিশ্বের সবখানে হিন্দিতে ছবিটি মুক্তি দেওয়া হলেও ভারতের পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পাবে বাংলায় ডাবিং করে। ইউটিউব ও কলকাতার বাংলা টিভি চ্যানেলগুলোতে ছবির বাংলা ট্রেলার দেখানো হচ্ছে।

 

 



সাতদিনের সেরা