kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সৃজিত ও বিশালের মুখে ‘রেহানা’ বন্দনা

রংবেরং প্রতিবেদক   

২ অক্টোবর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সৃজিত ও বিশালের মুখে ‘রেহানা’ বন্দনা

আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের ‘রেহানা মরিয়ম নূর’-এর পর নিজেকে আমূল বদলে ফেলেছেন আজমেরী হক বাঁধন। এটিই বাংলাদেশের প্রথম ছবি যেটি কান চলচ্চিত্র উৎসবে অফিশিয়ালি মনোনয়ন পেল। কান ছাড়াও বিশ্বের নামি বেশ কিছু উৎসবে আলোড়ন তোলে ছবিটি। কানে ছবিটি যাওয়ার প্রক্রিয়ার সময়ই ওপার বাংলার নামি পরিচালক সৃজিত মুখার্জির ওয়েব সিরিজ ‘রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনো খেতে আসেননি’তে ‘মুসকান’ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন আজমেরী হক বাঁধন।

বিজ্ঞাপন

এ বছর করলেন প্রথম হিন্দি ওয়েব ছবি—বিশাল ভরদ্বাজের ‘খুফিয়া’।

এত দিন পর অবশেষে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ দেখলেন বাংলাদেশের ‘জামাইবাবু’। অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলার স্বামী সৃজিত তো সেই সূত্রে বাংলাদেশের জামাইবাবুই। গতকাল ‘রেহানা’ নিয়ে নিজের মুগ্ধতা প্রকাশ করলেন তিনি। ফেসবুকে সৃজিত লেখেন, “শুধু ওয়েব সিরিজেই ‘ঢাকা রেনেসাঁ’ সীমাবদ্ধ নয়। ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ দেখুন। এই ছবির সাউন্ড ডিজাইন এতই শক্তিশালী, আপনি চোখ বন্ধ করে ছবিটা দেখতে পারবেন। সিনেমাটোগ্রাফি এতই শক্তিশালী যে সাউন্ড অফ করেও আপনি ছবিটি দেখতে পারবেন। আর পারফরম্যান্স! সব চরিত্রই আজমেরী হক বাঁধনের সঙ্গে সম্পৃক্ত। বাংলা ছবির সর্বকালের সেরা সব পারফরম্যান্সের তালিকায় নিঃসন্দেহে তাঁকে রাখতে পারবেন। ”

সৃজিতের পোস্টটি নিজের ফেসবুকে শেয়ার করেছেন ‘রেহানা’রূপী বাঁধন। জানিয়েছেন কৃতজ্ঞতাও। গতকাল বাঁধন জানালেন, এত দিন ছবিটি দেখার সুযোগ হয়নি সৃজিতের। তিনি বলেন, “চরকিতে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ আছে, তবে শুধু বাংলাদেশেই ছবিটি দেখা যায়। দেশের বাইরের দর্শক সেখানে ছবিটা দেখতে পারে না। দেশের বাইরে যেসব উৎসবে গেছে ছবিটি, সেখানেও সৃজিতের দেখার সুযোগ ছিল না। ব্যক্তিগভাবে তাঁকে আমরা ছবিটি দেখিয়েছি। এর পরই তাঁর এমন মন্তব্য। ”

সৃজিত যেভাবে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ দেখতে পেরেছেন, একইভাবে বিশাল ভরদ্বাজও ছবিটি দেখেছেন। বাঁধনকে জানিয়েছেন তাঁর অনুভূমি। ইংরেজিতে লেখা তাঁর বার্তাটি কালের কণ্ঠকে দিয়েছেন বাঁধন। সেটার বাংলা করলে দাঁড়ায়, “অবশেষে ‘রেহানা’ দেখতে পারলাম এবং আমি খুবই পছন্দ করেছি ছবিটি। তুমি অসাধারণ, অন্যরাও। অ্যানি চরিত্রের বাচ্চাটা, পুরুষ ডাক্তার ও রনি—সবাই দারুণ। খুবই ভালো নির্মাণ ও অভিনয়। তুমি সত্যিই স্টার। ”

ভারতের দুই পরিচালকের ‘রেহানা’ দর্শন ও তাঁদের রিভিউ পেয়ে স্বভাবতই উচ্ছ্বসিত বাঁধন। বলেন, ‘বিশাল ভরদ্বাজ ও সৃজিত মুখার্জি দুজনই ভারতের জাতীয় পুরস্কার পাওয়া পরিচালক। তাঁরা যখন আমার অভিনয় দেখে প্রশংসা করেন, সেটা আমার জন্য সত্যিই আনন্দের। তবে একটা কথা বলতে চাই, ‘রেহানা’তে আমার যে পারফরম্যান্স এর পুরো ক্রেডিট পরিচালক ও ছবির টিমের। রেহানার প্রতিফলন অবশ্যই সৃজিতের ওয়েব সিরিজে পড়েছে, বিশালের ছবিতেও পড়েছে। ”

কথা প্রসঙ্গে বাঁধন আরো জানালেন, কানে ভারতের নামি পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ ছবিটি দেখে মুগ্ধতা প্রকাশ করেছিলেন। দেখেছিলেন গুজরাটি পরিচালক পান নলিনও, যার ‘ছেলো শো’ এবার অস্কারে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করবে।



সাতদিনের সেরা