kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

‘রকিব আমার জীবনে নায়ক হয়েই এসেছে’

অনেক দিন হলো নতুন ছবি হাতে নেননি, স্বামী-সংসার নিয়েই ব্যস্ত সময় পার করছেন মাহিয়া মাহি। গত সপ্তাহে রাজশাহী নিজের বাড়ি গিয়েছিলেন, ঢাকায় ফিরেই ব্যস্ত হয়ে পড়লেন নিজের রেস্টুরেন্ট নিয়ে। তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন সুদীপ কুমার দীপ

২৫ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘রকিব আমার জীবনে নায়ক হয়েই এসেছে’

রাজশাহী গিয়েছিলেন কেন?

আমার মাকে রাখতে গিয়েছিলাম। অনেক দিন তিনি বাড়িতে যান না। তা ছাড়া আমার বাড়ি নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। এখন ঘরের ভেতরের কিছু কাজ চলছে।

বিজ্ঞাপন

সেটাও দেখভাল করার দরকার ছিল। তাই হুট করে গিয়েছিলাম। মাত্র দুই দিন ছিলাম। ২১ মে ঢাকায় ফিরেছি।

 

বাড়িতে স্বামীকে নিয়ে বেশ কয়েকটি মজার ভিডিও বানিয়েছেন, সেগুলো ফেসবুকেও শেয়ার করেছেন...

রকিব (স্বামী) আগেও আমাদের বাড়ি গিয়েছিল। তখন সামাজিক মাধ্যমে ছবি বা ভিডিও দিইনি। এখন আম আর লিচুর সময়, টিপটিপ বৃষ্টিও ছিল। সব মিলিয়ে দারুণ সময় কেটেছে। ভাবলাম কিছু ভিডিও করি। রকিবকে তাঁর শ্বশুরের হাতে লাগানো গাছের আম-লিচু পাড়তে বললাম। সে পেড়েছেও। আর আমি সেই মুহূর্তটা ক্যামেরায় ধারণ করেছি।

 

প্রায়ই ফেসবুকে বিষাদমাখা স্ট্যাটাস দেন। অনেকে কিন্তু সংসার ভাঙার ইঙ্গিতও খুঁজে পেয়েছেন...

আমি বরাবরই বলে এসেছি ফেসবুকের সঙ্গে বাস্তব জীবনের মিল খোঁজাটা বোকামি। আগেও অনেকে আমার ফেসবুক স্ট্যাটাস দেখে নিউজ করেছেন। এবারও কয়েকটি নিউজ আমার চোখে পড়েছে, আমাদের সংসার নাকি টিকছে না! আমি আর রকিব হেসেছি বিষয়টি নিয়ে। কেউ আমার সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ না করেই নিউজগুলো করেছেন। এ নিয়ে আমার কোনো ক্ষোভ বা আক্ষেপ নেই। আমি আর রকিব ভালো আছি। দুজন দুজনকে অনেক ভালোবাসি, এটাই আসল খবর।

 

নিজের প্রযোজিত ছবিতে স্বামীকে নায়ক বানানোর ঘোষণা দিয়েছেন নাকি!

মজা করতে গিয়ে এটা বলেছি। তবে রকিব আমার কাছে নায়কের চেয়ে কম কিছু নয়। আমার জীবনে সে তো নায়ক হয়েই এসেছে। সুখে-দুঃখে পাশে আছে। আমার ভালো-মন্দ দেখাশোনা করছে। আবদার মেটাচ্ছে, আর কী লাগে! তবে হ্যাঁ, আমার অনেক ‘উইশ’-এর মধ্যে একটি রকিবকে সিনেমার পর্দায় দেখা।

 

 

নতুন ছবির খবর কী?

একটা ছবি চূড়ান্ত হয়েছে। তবে এখনই কিছু বলতে চাই না। আগামী মাস থেকে শুটিং। তখন ঘটা করে জানাব। আর আমি তো আগেই ঘোষণা দিয়েছি, বছরে একটা বা দুইটা ছবি করব। প্রস্তাব এলেও তাই ফিরিয়ে দিচ্ছি বেশির ভাগ।

 

রেস্টুরেন্ট ‘ফারিশতা’র খবর কী?

গাজীপুরে বেশ ভালো সাড়া পাচ্ছি। আমার তো এখন পেশাদার রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী হয়ে ওঠার ইচ্ছে জেগেছে। খুব শিগগিরই ‘ফারিশতা’র আরো কয়েকটি ব্রাঞ্চ করার চিন্তা-ভাবনা করছি। বাকিটা ভাগ্যের ওপর।

 

হাতে থাকা পুরনো ছবিগুলোর শুটিং কবে শুরু করবেন?

নির্মাতারা ভালো বলতে পারবেন। তাঁরা আমার কাছে শিডিউল চাইলেই তো শুটিংয়ের ডেট দেব। এর মধ্যে বোধ হয় বদিউল আলম খোকন স্যারের ছবিটার শুটিং শুরু হতে পারে।

 

 

 

 



সাতদিনের সেরা