kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

এ এক অন্য রকম বিড়ম্বনা

আজ থেকে এনটিভিতে শুরু হচ্ছে ‘জয়েন্ট ফ্যামিলি’। প্রতি বৃহস্পতি, শুক্র ও শনিবার রাত ৮টা ২০ মিনিটে প্রচার হবে ধারাবাহিক নাটকটি। রচনা মজুমদার শিমুল ও গোলাম সারওয়ার অনিক, পরিচালনায় রাফাত মজুমদার রিংকু। এটির অন্যতম প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন কেয়া আক্তার পায়েল। তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন সুদীপ কুমার দীপ

২৬ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এ এক অন্য রকম বিড়ম্বনা

কেমন আছেন?

এইতো ভালো। সকাল থেকে [গতকাল] গাজীপুরের ‘অরণ্যবাস’ স্পটে শুটিং করছি ‘জয়েন্ট ফ্যামিলি’র।  কাল [আজ] থেকে ধারাবাহিকটির প্রচার শুরু হবে। অন্য রকম একটা অনুভূতি হচ্ছে। দর্শক নাটকটি কিভাবে গ্রহণ করবেন সেটা নিয়েই ভাবছি।

 

‘জয়েন্ট ফ্যামিলি’র গল্প কেমন?

বেশ মজার। এখানে আমি যৌথ পরিবারের মেয়ে শিশির। সে বিয়ে করে কখনো অন্যের ঘরে যেতে চায় না। ফলে পরিবার থেকে ঘরজামাই খোঁজা হয়। এই সময়ে কোনো ব্যক্তিত্ববান ছেলে ঘরজামাই থাকবে না সেটাই স্বাভাবিক। শেষ পর্যন্ত একটি ছেলে পাওয়া যায়, তবে তার শর্ত ঘরজামাই নয় বরং পাশাপাশি দুটি বাড়িতে দুই পরিবার থাকলে সে রাজি। তার শর্ত মেনে দুই পরিবার পাশাপাশি থাকতে গিয়েই বাঁধে বিপত্তি। নাটকটিতে কিছু বার্তাও আছে। সেগুলো সমাজের কাজে লাগবে।

 

এই ধারাবাহিকের শুটিংয়ে কোনো মজার ঘটনা ঘটেনি?

মাত্র দ্বিতীয় লটের শুটিং করছি আমরা। এমনিতে দীর্ঘ ধারাবাহিক, অনেক শিল্পী আছেন। একটা পিকনিকের মতো করে শুটিং হচ্ছে। পুরোটা সময় উপভোগ করছি। ১০৪ পর্ব পর্যন্ত শুটিং করতে করতে অবশ্যই কোনো মজার ঘটনা ঘটবে।

 

এটা তো আপনার প্রথম ধারাবাহিক। এর আগে ধারাবাহিক করেননি কেন?

আমি যেসব একক নাটকে অভিনয় করি, প্রায় সবটিতেই সমাজের প্রতি কোনো না কোনো বার্তা থাকে। এত দিন যে ধারাবাহিকগুলোতে অভিনয়ে প্রস্তাব পেয়েছি, সেগুলোতে আমার চরিত্র বা গল্পে বলার মতো কিছু ছিল না, তাই করা হয়নি। তা ছাড়া রাফাত মজুমদার রিংকু ভাইয়ের সঙ্গে আমার বোঝাপড়াটা ভালো। তাঁর বেশ কয়েকটি একক নাটক করেছি। বিশেষ করে ‘আই সি ইউ’ নাটকটি আমার নিজের অনেক প্রিয়। তাই মনে হলো ভাইয়ের পরিচালনায় ধারাবাহিকটিতে অভিনয় করলে ভালো কিছুই হবে।

 

‘ইন্দুবালা’ [২০১৯] নামে একটি ছবিতে অভিনয় করেছিলেন...

আমার ক্যারিয়ারের শুরুর দিকের কথা। ছবির পরিচালক ছিলেন জয় সরকার ভাই। আমার সহশিল্পী ছিলেন আনিসুর রহমান মিলন ভাই। হলে মোটামুটি সাড়া ফেলেছিল ছবিটি।

 

পরে আর সিনেমা করলেন না কেন?

গত দুই বছর আমি নাটক নিয়ে খুবই ব্যস্ত সময় পার করেছি। তাই গত দুই বছর কোনো ছবি করা হয়নি। তা ছাড়া মাঝখানে করোনার কারণে খুব একটা শুটিং করিনি। সিনেমার ইউনিট অনেক বড় হয়, ঝুঁকি থেকেই যায়। আশা করছি, শিগগির বড় পর্দায় ফিরব।

 

মিডিয়ায় কেয়া ও পায়েল নামে অনেকেই আছেন। নাম নিয়ে বিব্রত হন না? 

আর বলবেন না! মিডিয়াতে আসার আগে পায়েলি পায়েল নামে একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলেছিলাম। সেটাই হয়েছে কাল। আমার সিনেমা ‘ইন্দুবালা’তেও দেখবেন পায়েলি পায়েল নাম। মিডিয়ার অনেকে এখনো এই নামেই ডাকেন। এ এক অন্য রকম বিড়ম্বনা।

 

কোনো ওয়েব সিরিজ করছেন?

বেশ কয়েকটি সিরিজের ব্যাপারে কথা চলছে। এর মধ্যে দুটি প্রায় চূড়ান্ত। তবে এই মুহূর্তে নাম বা নির্মাতার নাম বলতে চাচ্ছি না।



সাতদিনের সেরা