kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ মাঘ ১৪২৮। ২৫ জানুয়ারি ২০২২। ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

‘এমন ঘটনা আগে কখনো ঘটেনি’

২৪ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘এমন ঘটনা আগে কখনো ঘটেনি’

সিমলা

প্রেক্ষাগৃহের বদলে আগামীকাল ইউটিউবে মুক্তি পাবে রুবেল আনুষের ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’। সেন্সর বোর্ডে নিষিদ্ধ হওয়া ছবিটি নিয়ে সুদীপ কুমার দীপ কথা বলেছেন ছবির নায়িকা সিমলার সঙ্গে 

 

কেমন আছেন?

এই তো ভালো আছি। খুব বেশি কাজের চাপ নেই। পরিবারকে সময় দিচ্ছি।

বিজ্ঞাপন

আমার মা অসুস্থ। তাঁকে নিয়ে চিকিৎসকের কাছে যেতে-আসতেই সময় চলে যাচ্ছে।

 

অবশেষে ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ ইউটিউবে মুক্তি পাচ্ছে...

আমার সঙ্গে পরিচালক-প্রযোজক কেউ যোগাযোগ করেননি। তবে সংবাদমাধ্যমে জানলাম বিষয়টা। ছবিটি নিয়ে অনেক তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছে। পরিচালক সমিতি ও শিল্পী সমিতি পর্যন্ত বিচার গড়িয়েছিল। পরিচালক সমিতিতে পরিচালক অভিযোগ করলেন আমি শিডিউল দিচ্ছি না। শিল্পী সমিতিতে আমি অভিযোগ করলাম, আমার পারিশ্রমিক না পাওয়া নিয়ে। আমার পুরো ক্যারিয়ারে এমন ঘটনা আগে কখনো ঘটেনি।

 

ছবিটি ‘প্রেমকাহন’ নামেও সেন্সর বোর্ডে জমা পড়েছিল...

‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ হিসেবে প্রথম জমা পড়েছিল। বোর্ড সদস্যরা কিছু কর্তন দিয়েছিলেন। যতদূর জানি, পরিচালক বোর্ডের কথা না মেনে উল্টো নাম পরিবর্তন করে ‘প্রেমকাহন’ নামে ফের জমা দেন। সেন্সর বোর্ড আবার ছবিটি দেখে প্রদর্শনের অযোগ্য ঘোষণা করে।

 

এমন কী আছে ছবিটিতে যে প্রদর্শনযোগ্য নয়?

আমি আমার অংশের গল্পটুকু জানি। এর বাইরে আর কিছু জানি না। আমার চরিত্রটি একজন মধ্যবয়স্ক নারীর। যে অসম প্রেমে আসক্ত হয়ে ব্যক্তিজীবনে নানা ঝামেলায় জড়ায়। আমার মনে হয়, এটুকু নিয়ে সেন্সরের মাথাব্যথা নেই। হয়তো অন্য কিছু আছে, যেটা সমাজের জন্য খারাপ বার্তা দেবে।

 

বলিউডের গোবিন্দর সঙ্গে কলকাতার বাংলা ছবি ‘সমাধি’ করেছিলেন। বলিউডে করেছেন ‘সফর’। নতুন আর কোনো খবর আছে কী?

ওখানে একটা ওয়েব সিরিজের কথা চলছে। মাঝখানে করোনার কারণে যেতে পারিনি। নইলে আরো কিছু কাজ এর মধ্যে হয়ে যেত। তবে সবার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। হয়তো খুব শিগগির নতুন খবর দিতে পারব।

 

দেশে কোনো ছবি করছেন না?

‘প্রিয়া রে’ নামে একটি ছবির প্রস্তাব পেয়েছিলাম। চরিত্রটা অতটা পছন্দ হয়নি। আমি মনে করি, চলচ্চিত্রে এখনো আমার অনেক কিছু দেওয়ার আছে। প্রথম ছবি ‘ম্যাডাম ফুলি’তে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলাম। অথচ পরে আমাকে সেভাবে কেউ কাজে লাগাতে পারলেন না। এই দোষ আমার না নির্মাতাদের, জানি না। আসলে আমি অনেক কিছু মেনে নিতে পারি না। হয়তো তার খেসারত দিতে হয়েছে। তবে ঘুরে দাঁড়ানোর ইচ্ছা আছে।



সাতদিনের সেরা