kalerkantho

সোমবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৯ নভেম্বর ২০২১। ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

মনে হচ্ছে স্বপ্নের দিন পার করছি

২০ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মনে হচ্ছে স্বপ্নের দিন পার করছি

ছবি : মাহবুব হোসেন

২২ অক্টোবর মুক্তি পেতে যাচ্ছে প্রসূন রহমানের ‘ঢাকা ড্রিম’। এই ছবির মাধ্যমে প্রথমবার বড় পর্দায় অভিষেক ঘটতে যাচ্ছে মডেল-অভিনেত্রী পূর্ণিমা বৃষ্টির। তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন সুদীপ কুমার দীপ

 

প্রথম ছবি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। কেমন লাগছে?

প্রথম ছবি প্রথম সন্তানের মতো। এই অনুভূতি বলে বোঝাতে পারব না। এক সপ্তাহ ধরে নির্মাতা আমাকে ছবির প্রচারণায় ডাকছেন। সেখানে আমার সঙ্গে গুণী অভিনেতারা থাকছেন। মনে হচ্ছে স্বপ্নের দিন পার করছি। এই ছবি আর দশটা বাণিজ্যিক ছবির মতো নয়। ১০ জন চরিত্রের ১০টি গল্প নিয়ে তৈরি হয়েছে ছবিটি। সবাই প্রান্তিক, খেটে খাওয়া মানুষ। এমন একটি ছবির অংশ হতে পেরে গর্বিত।

 

ছবিটির সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন কিভাবে?

প্রসূন রহমান দাদার সহকারী পরিচালক অন্তর। তিনি আমাকে আগে থেকেই চিনতেন। ছবির গল্প নিয়ে আলোচনার সময় প্রসূন দাদাই আমার কথা অন্তরকে বলেছিলেন। সঙ্গে সঙ্গে অন্তর ফোন দিলেন। আমি তখন নারায়ণগঞ্জ থাকি। সেখান থেকে ঢাকা এসে কাজ করে আবার ফিরে যেতাম। প্রসূন দাদা বিষয়টি জানার পর প্রডাকশনকে বলে দিলেন যখন আমি নারায়ণগঞ্জ থেকে ঢাকায় আসব শুধু তখন আমার অংশের শুটিং হবে। এটাও আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া ছিল। আমি এই সহৃদয়তার কথা কখনো ভুলব না।

 

ছবিতে আপনাকে দর্শক কিভাবে পাবেন?

আমার চরিত্রটি একজন স্বামী পরিত্যক্ত নারীর। ছোট এক সন্তান আছে আমার। যাকে নিয়ে জীবন সংগ্রামে জয়ী হতে ঢাকায় আসি। গার্মেন্টে কাজ শুরু করি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত জয়ী হতে পারি কি না সেটাই গল্প।

 

এর আগে অনেক গান, নাটক ও বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন। এখন কম দেখা যাচ্ছে কেন?

আমি বেছে বেছে কাজ করতে পছন্দ করি। যে নাটকগুলোতে অভিনয় করেছি, তার বেশির ভাগ মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক। ছোটবেলা থেকে বিপাশা আপু, শমী কায়সার আপু, আফসানা মিমি আপুরা আমার আদর্শ। সব সময় চেয়েছি তাঁদের নিয়ে যেমন গল্পনির্ভর নাটক হতো আমাকে নিয়েও হোক। যখন সেই ধরনের প্রস্তাব পেয়েছি তখনই নাটকগুলোতে কাজ করেছি। ভালো পণ্য না হলে কখনো বিজ্ঞাপন করিনি, আবার ভালো গান না হলেও মডেলিং করিনি। সামনে ব্যাটে-বলে মিললে আবার কাজ করব।

 

‘গিরগিটি’ ছবি কবে মুক্তি পাবে?

ছবির অভিনেতা তাসকিন অনেক দিন ধরে অসুস্থ। দেশের বাইরে চিকিৎসাধীন। তিনি দেশে এলেই ছবির বাকি অংশের শুটিং শুরু হবে। আশা করছি, এ বছরই সেটা সম্ভব হবে। আগামী বছরের প্রথম দিকে হয়তো নির্মাতা ছবিটি মুক্তি দিতে পারবেন।

 

হাতে নতুন কাজ কী কী আছে?

এই মুহূর্তে বেশ কিছু বিজ্ঞাপনে মডেল হওয়ার প্রস্তাব আছে। পাশাপাশি একটি নাটকে কাজ করার কথাও চলছে। অপেক্ষায় আছি ভালো কোনো গল্পের, সেটা মিলে গেলে শিগগিরই ওয়েব ফিল্মেও দেখা যাবে আমাকে।



সাতদিনের সেরা