kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ কার্তিক ১৪২৮। ২৮ অক্টোবর ২০২১। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

নেত্রকোনায় রইল না আর কোনো সিনেমা হল

রংবেরং প্রতিবেদক   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নেত্রকোনায় রইল না আর কোনো সিনেমা হল

আগে যেমন ছিল ‘হীরামন’, [ইনসেটে] হল ভাঙার কাজ শুরু হওয়ার পর এখন যেমন

একসময় নেত্রকোনা জেলায় সিনেমা হল ছিল ২০টি। একে একে ১৯টি হলই এর আগে বন্ধ হয়ে গেছে। বাকি ছিল একটি—‘হীরামন’। সবেধন নীলমণি সেই সিনেমা হলটিও এবার ভাঙা হচ্ছে। পঞ্চাশের দশক পর্যন্ত নেত্রকোনা জেলা শহরের বাসিন্দাদের চিত্তবিনোদনের প্রধান কেন্দ্র ছিল ‘বিজয় টকিজ’ সিনেমা হল। ১৯৬৩ সালে হলটি কিনে নেন নওয়াব আলী মিয়া।

নাম বদলে করেন ‘হাসনা টকিজ’। ১৯৭০ সালে শহরের কোর্ট স্টেশনের পেছনে ‘হীরামন’ নামে আরেকটি প্রেক্ষাগৃহ তৈরি করেন নওয়াব আলী মিয়া। পঞ্চাশ বছর ধরে নেত্রকোনার বিভিন্ন প্রজন্মের দর্শকের প্রিয় হল ছিল এটি। চলচ্চিত্রের মন্দা ব্যবসার বলি হলো সেই ‘হীরামন’। হলটির পরিচালক শেখ সুলতান তপু জানালেন, বছরে দুই ঈদের সময় হলটি চলত, বাকি সময় বন্ধ থাকত। লকডাউনের বছরখানেক আগে থেকেই হলটি বন্ধ ছিল, আর লকডাউনের পর পুরোপুরি বন্ধ করে দিতে হলো।

তিনি বলেন, ‘হলটি চালু রাখার অনেক চেষ্টা করেছি আমরা। কয়েক বছর ধরেই কোনো ব্যবসা নেই। একটি প্রযোজনা সংস্থার সহায়তায় হলটি কোনো রকম চালু রাখা হয়েছিল এত দিন। লভ্যাংশের একটি অংশ তারা নিয়ে নিত। এভাবে কি আর ব্যবসা হয়? তবে হীরামন ভেঙে ফেলা হলেও সরকারি সহযোগিতা পেলে পুনরায় সিনেমা হল দেওয়ার ইচ্ছা আছে আমাদের।’



সাতদিনের সেরা