kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৮ মে ২০২১। ৫ শাওয়াল ১৪৪

৭৪ ব্রিটিশ একাডেমি ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস

নোমাডল্যান্ড প্রমিজিং ইয়াং ওম্যান-এর জয়

রংবেরং ডেস্ক   

১৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নোমাডল্যান্ড প্রমিজিং ইয়াং ওম্যান-এর জয়

ফ্রান্সিস ম্যাকডরমন্ড

১০ ও ১১ এপ্রিল লন্ডনের রয়াল আলবার্ট হলে বসেছিল ৭৪ ব্রিটিশ একাডেমি ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডসের [বাফটা] আসর। যদিও মনোনীতরা কেউই সশরীরে হাজির হননি, যুক্ত ছিলেন ভার্চুয়ালি, তবে সীমিত আকারে ছিল রেড কার্পেট। সেখানে টম হিডলস্টন ও অন্য তারকাদের সঙ্গে স্বামী নিক জোনাসকে নিয়ে হাজির ছিলেন অনুষ্ঠানের অন্যতম ঘোষক প্রিয়াঙ্কা চোপড়াও।

বাফটায় ‘নোমাডল্যান্ড’ ও ‘রকস’ সর্বোচ্চ সাতটি করে মনোনয়ন পেয়েছিল। ‘রকস’ তেমন কিছু করতে না পারলেও অনুমিতভাবেই আসরে সর্বোচ্চ চারটি পুরস্কার জিতেছে ক্লোয়ি ঝাওয়ের রোড মুভি ‘নোমাডল্যান্ড’। গোল্ডেন গ্লোবের পর বাফটায়ও বাজিমাত করেছে ছবিটি। জিতেছে সেরা ছবি, সেরা পরিচালক, সেরা অভিনেত্রী ও সেরা সিনেমাটোগ্রাফারের পুরস্কার। এই ছবির জন্য বাফটার ৭৪ বছরের ইতিহাসে দ্বিতীয় নারী হিসেবে সেরা পরিচালক হয়েছেন ক্লোয়ি। এর আগে এই পুরস্কার জিতেছিলেন ক্যাথরিন বিগলো [দ্য হার্ট লকার]। পুরস্কার জিতে এক প্রতিক্রিয়ায় ক্লোয়ি বলেন, ‘সব পুরস্কারই গুরুত্বপূর্ণ। এটা নিঃসন্দেহে আমার শিক্ষকদের গর্বিত করবে।’ ‘নোমাডল্যান্ড’-এ যাযাবর নারী ফার্নের চরিত্রে অভিনয় করে দ্বিতীয়বারের মতো সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন ফ্রান্সিস ম্যাকডরমন্ড। এর আগে দুইবার করে অস্কার ও এমি অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন এই মার্কিন অভিনেত্রী। প্রতিক্রিয়ায় ব্রিটিশ জনগণকে ধন্যবাদ দিয়েছেন তিনি। ‘দ্য ফাদার’-এর জন্য সেরা অভিনেতা হয়েছেন অ্যান্থনি হপকিন্স। ভার্চুয়ালি দেওয়া এক প্রতিক্রিয়ায় অভিনয়কে তাঁর ‘রক্তের অংশ’ বলে অভিহিত করেন তিনি। এ ছাড়া সেরা পার্শ্ব-অভিনেতা-অভিনেত্রী হয়েছেন যথাক্রমে ড্যানিয়েল কালুয়া [জুডাস অ্যান্ড দ্য ব্ল্যাক মেইসা] ও ইয়ুন ওহ-জুং [মিনারি]। সেরা বিদেশি ভাষার ছবি হয়েছে ড্যানিশ ছবি ‘অ্যানাদার রাউন্ড’।

গেল বছর মুক্তির পর বহুল প্রশংসিত ‘প্রমিজিং ইয়াং ওম্যান’ দারুণ সাফল্য দেখিয়েছে বাফটায়। জিতেছে সেরা ব্রিটিশ ছবি ও সেরা অভিষিক্ত পরিচালকের পুরস্কার [এমিরাল্ড ফেনেল]।

এবারের বাফটায় প্রয়াত হওয়া চ্যাডউইক বসম্যান, ইরফান খান, ঋষি কাপুরসহ অন্যদের স্মরণ করা হয়। মূল অনুষ্ঠানে প্রিন্স উইলিয়ামসের ভাষণ দেওয়ার কথা ছিল। তবে দাদা প্রিন্স ফিলিপের মৃত্যুর কারণে তিনি হাজির হতে পারেননি।

 

সূত্র : এএফপি, বিবিসি