kalerkantho

সোমবার । ১০ কার্তিক ১৪২৭। ২৬ অক্টোবর ২০২০। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

তিন বছরে পারিশ্রমিক বেড়েছে ৩৩ গুণ!

রংবেরং ডেস্ক   

১৮ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তিন বছরে পারিশ্রমিক বেড়েছে ৩৩ গুণ!

গাল গ্যাদত

‘ওয়ান্ডার ওম্যান’-এর আগে ও পরে গাল গ্যাদতের ক্যারিয়ারকে দুই ভাগে ভাগ করা যায়। এক দশকের বেশি সময় আগে চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করলেও ইসরায়েলি অভিনেত্রী তেমন পরিচিতি পাননি। কিন্তু ২০১৭ সালে এক ‘ওয়ান্ডার ওম্যান’ তাঁর জীবন পুরোপুরি বদলে দিয়েছে। সুপারহিরো ছবিটি বিশ্বব্যাপী ৮০ কোটি ডলারেরও বেশি ব্যবসা করেছে, গ্যাদতকে পৌঁছে দিয়েছে সময়ের শীর্ষ অভিনেত্রীর কাতারে। সবচেয়ে বড় বদল এসেছে পারিশ্রমিকের অঙ্কে। ২০১৭ সালে ‘ওয়ান্ডার ওম্যান’-এর জন্য মাত্র তিন লাখ ডলার [প্রায় দুই কোটি ৫৪ লাখ টাকা] পারিশ্রমিক পেয়েছিলেন তিনি। অথচ ‘ওয়ান্ডার ওম্যান’-এর সিক্যুয়াল ‘ওয়ান্ডার ওম্যান ১৯৮৪’-এর জন্য গ্যাদত যা পারিশ্রমিক পেয়েছেন, সেটি শুনলে চমকে উঠতে হয়—এক কোটি ডলার। মানে মাত্র তিন বছরে তাঁর পারিশ্রমিক বেড়েছে ৩৩ গুণেরও বেশি! সম্প্রতি গ্যাদতকে নিয়ে প্রচ্ছদ প্রতিবেদন করে ম্যাগাজিন ভ্যানিটি ফেয়ার। সেখানেই অভিনেত্রীর পারিশ্রমিকের এই উল্লম্ফনের ব্যাপারটি উঠে এসেছে। গ্যাদতের এই অর্জন তাঁর পাওনা ছিল বলেই মনে করেন ‘ওয়ান্ডার ওম্যান’-এর পরিচালক প্যাটি জেনকিনস, ‘সে এমন একজন অভিনেত্রী, যে শুধু নিজের চরিত্র নিয়েই ভাবে। পর্দায় বীরত্ব দেখানো হচ্ছে কি না, গ্ল্যামার আছে কি না—এসব নিয়ে চিন্তিত নয়।’ গ্যাদত ও প্যাটি সম্প্রতি ঘোষণা দিয়েছেন ‘ক্লিওপেট্রা’ করার, যেখানে ক্লিওপেট্রার ভূমিকায় দেখা যাবে গ্যাদতকে।

 

সূত্র : ইয়াহু

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা