kalerkantho

বুধবার । ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩ জুন ২০২০। ১০ শাওয়াল ১৪৪১

করোনার কবলে বিনোদন দুনিয়া

করোনার কবলে সারা বিশ্ব, প্রভাব পড়েছে বিনোদনজগতেও। সর্বশেষ খবর নিয়ে এই প্রতিবেদন

২৮ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



করোনার কবলে বিনোদন দুনিয়া

‘ঘরে থাকি’ গাইছেন সন্ধি, শারমিন সুলতানা সুমি, তাহসান রহমান খান ও এলিটা করিম

ঘরে বসেই সাত শিল্পীর গান-ভিডিও

করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে সতর্কতার অংশ হিসেবে সাতজন শিল্পী কণ্ঠ দিয়েছেন ‘ঘরে থাকি’ শিরোনামের একটি বিশেষ গানে। ২৬ মার্চ ভিডিও আকারে গানটি প্রকাশ করা হয় গ্রামীণফোনের ফেসবুক পেজে। নিজেদের ঘরে থেকেই গানটিতে কণ্ঠ দেন সাদি মোহাম্মদ, তাহসান রহমান খান, শারমিন সুলতানা সুমি, এলিটা করিম, মিলন মাহমুদ, সন্ধি ও জাহিদ হাসান নীরব। গানটির কথা লিখেছেন গাউসুল আজম শাওন। শারমিন সুলতানা সুমির সুরে সংগীতায়োজন করেছেন পাভেল অরিন। গীতিকার ও উদ্যোক্তা গাউসুল আজম শাওন বলেন, ‘চারটি লাইন আগে থেকেই মাথায় ঘুরছিল। ২৪ মার্চ ভোর ৬টায় হঠাৎ ঘুম থেকে উঠে একটানে পুরো গানটি লিখে ফেলি। করোনা প্রস্তুতির পাশাপাশি আমাদের স্বাধীনতার কথা, লড়াইয়ের মানসিকতার কথা উঠে এসেছে গানে। শিল্পীরা সবাই বাসায় বসেই কণ্ঠ দিয়েছেন, মোবাইলে ভিডিও ধারণ করে পাঠিয়েছেন।’

 

কুদ্দুস বয়াতির গান পালাক করোনা পালাক

সচেতনতার জন্যই করোনাভাইরাস নিয়ে গান করেছেন লোকগানের জনপ্রিয় শিল্পী কুদ্দুস বয়াতি। গানটির শিরোনাম ‘পালাক করোনা পালাক’। ব্র্যাকের পৃষ্ঠপোষকতায় গতকাল সকালে ব্র্যাকের ফেসবুক পেজে গানটি প্রকাশ করা হয়। ক্যাপশনে লেখা হয়, ‘করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়াইয়ে আমাদের সবাইকে জেতাতে চলে এসেছেন কুদ্দুস বয়াতি! সুরে-গানে এবার হবে যুদ্ধ, আর লড়ব আমরা সবাই। জেনে চলি, মেনে চলি, করোনাকে হারাই। কোভিড-১৯ প্রতিরোধে, আছি বাংলাদেশের পাশে।’

 

ফারাহ খানের অনুরোধ

বাইরে বেরুনো নিষেধ, তাই জিমে যেতে পারছেন না তারকারা। ঘরে বা ছাদে ব্যায়াম করার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিয়মিত দিচ্ছেন বলিউড তারকারা। ভক্তদেরও ঘরেই ফিটনেস নিয়ে কাজ করার পরামর্শ দিচ্ছেন। এটা একেবারেই পছন্দ হচ্ছে না পরিচালক ও কোরিওগ্রাফার ফারাহ খানের। এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, ‘দয়া করে এসব ভিডিও দেওয়া বন্ধ করুন। পৃথিবী এখন একটা কঠিন সময় পার করছে। এসব ভিডিও দেখার চেয়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ আছে। যদি এসব বন্ধ না করেন, পরে যদি আপনাদের আনফলো করি দয়া করে কিছু মনে করবেন না।’

 

দিনমজুর ও ভক্তদের পাশে

লকডাউনে সবচেয়ে বিপদে পড়েছে দিনমজুররা। তাদের সহায়তার জন্য ‘স্ট্যান্ড উইথ ডেইলি ওয়েজ আর্নার’ উদ্যোগে শরিক হয়েছেন বলিউড তারকারা। নিজে অনুদান দিয়ে অন্যদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন আয়ুষ্মান খুরানা, তাপসী পান্নু, অনন্যা পাণ্ডে, ভূমি পেডনেকররা।

অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রে ভক্তদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন গায়িকা টেইলর সুইফট, আরিয়ানা গ্রান্দে। করোনাভাইরাসের কারণে কাজ হারিয়েছেন এমন এক ভক্তকে তিন হাজার ডলার সাহায্য দিয়েছেন সুইফট। জানা গেছে, কাজ না থাকায় বিভিন্ন বিল কিভাবে দেবেন তা নিয়ে চিন্তিত ছিলেন সামান্থা জ্যাকবসন। এটা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওয়া তাঁর পোস্ট চোখে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই অর্থ পাঠিয়ে দেন সুইফট। ভক্তদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন গ্রান্দেও। বেশ কয়েকজন ভক্তকে ৫০০, এক হাজার ও এক হাজার ৫০০ ডলার সহায়তা দিয়েছেন তিনি।

 

পুলিশকে সংযত আচরণের আহ্বান

২১ দিনের লকডাউন ঘোষণার পর ভারতের অনেকেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘরে থাকার আহ্বান মানছে না। এ জন্য কঠোর হয়েছে পুলিশ। ঘর থেকে বের হওয়া জনতার ওপর পুলিশের বেধড়ক পিটুনির ছবি ভাইরাল হওয়ায় মুখ খুলেছেন বলিউড পরিচালক ও অভিনেতারা। অনুরাগ কাশ্যপ বলেছেন, ‘আমাদের শিক্ষিত পুলিশ প্রয়োজন।’ ভিডিও শেয়ার করে অনুভব সিনহা প্রশ্ন তুলেছেন, ‘এভাবে কাউকে মারা কি আইনবিরুদ্ধ নয়?’ প্রতিবাদ জানিয়েছেন অভিনেত্রী রিচা চাড্ডা, কৃতিকা কর্মাসহ অনেকেই।

 

বিদ্যা বালান

দূষণহীন পরিবেশে খুশি বিদ্যা

সারা দুনিয়াতেই গাড়ি-ঘোড়া প্রায় বন্ধ, থেমে গেছে কলকারখানার চাকাও। এতে ভীষণ খুশি বিদ্যা বালান। এক টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘আমাদের নাড়িয়ে দেওয়ার জন্য করোনাভাইরাসকে ধন্যবাদ। আয়েশি জীবন কাটাতে কাটাতে আমরা ধরেই নিয়েছিলাম কেউ আমাদের চ্যালেঞ্জ করতে পারবে না। এই ভয় পাওয়ার দরকার ছিল। সব চাকা থেমে গেছে। প্রকৃতি এটা অনেক দিন থেকেই আমাদের কাছে ভিক্ষা চাইছিল।’

 

দীপিকার আইডিয়া চুরি!

কাজের লোক না আসায় নিজেই বাসনপত্র ধোয়ার ভিডিও দিয়েছিলেন ক্যাটরিনা কাইফ। যা দেখে দীপিকা পাড়ুকোন মজা করে বলেছেন, এই ভিডিও আসলে তাঁরই করার কথা ছিল, ক্যাট সেটা চুরি করেছেন! ‘বিষয়টা নিয়ে তোমার সঙ্গে আলাপ করাই ভুল হয়েছে, ও আইডিয়াটা চুরি করেছ।’

 

করোনার মধ্যেও লঞ্চে পুরো টিম নিয়ে ‘অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন’ ছবির টানা শুটিং চালিয়ে যাচ্ছিলেন পরিচালক আবু রায়হান জুয়েল। অবশেষে ছবির টিম হার মানল। ২৬ মার্চ শুটিং অর্ধসমাপ্ত রেখে ক্যামেরা ক্লোজ করে ঢাকায় ফিরেছেন সবাই। 

তারকা দম্পতি ওমর সানী-মৌসুমীকে এখন থেকে দেখা যাবে বাংলাদেশ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাসংক্রান্ত সতর্কতামূলক বিভিন্ন ভিডিও বার্তায়।

আমেরিকা থেকে ফিরে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টিনে ছিলেন অভিনেত্রী-পরিচালক মেহের আফরোজ শাওন। এ সময় দুই সন্তান নিষাদ ও নিনিতের সঙ্গেও দেখা করেননি। ১৪ দিন শেষে মা আর সন্তানদের সাক্ষাতের একটি ভিডিও ফেসবুকে শেয়ার করেছেন ‘শ্রাবণ মেঘের দিনে’ অভিনেত্রী।

করোনা মোকাবেলায় পশ্চিম বাংলার উদ্যোগ প্রশংসিত হচ্ছে। হাওড়া ব্রিজসহ শহরের বিভিন্ন স্থাপনার ছবি দিয়ে বলিউড ‘শাহেনশাহ’ অমিতাভ বচ্চন লিখেছেন, ‘অবিশ্বাস্য সব ছবি। হাওড়া ব্রিজ, ফ্লাইওভার থেকে বিমানবন্দর, সব কী পরিচ্ছন্ন! বিশেষ করে যাঁরা কখনো কলকাতায় থেকেছেন, তাঁদের দারুণ লাগবে এসব দৃশ্য।’

করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আমেরিকার জনপ্রিয় মঞ্চ অভিনেতা মার্ক ব্লাম। ২৫ মার্চ ৬৯ বছর বয়সী অভিনেতা নিউ ইয়র্কে মারা যান।

দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ থাকার পর খুলে দেওয়া হয়েছে চীনের ৫০০ প্রেক্ষাগৃহ। এবার সাংহাইতে খুলছে আরো ২০০টি। জানা গেছে, সব প্রস্তুতি শেষ। কয়েক দিনের মধ্যেই প্রেক্ষাগৃহগুলো আবার মুখরিত হবে দর্শকের আনাগোনায়।

 

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস, ইয়াহু, ফিমেল ফার্স্ট

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা