kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ভালোবাসা ছড়িয়ে দিলেন নোবেল

রংবেরং প্রতিবেদক   

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভালোবাসা ছড়িয়ে দিলেন নোবেল

জি বাংলার সংগীতবিষয়ক রিয়ালিটি শো ‘সা রে গা মা পা’র প্রতিযোগী মাঈনুল আহসান নোবেল। শ্রীকান্ত আচার্য্য, শান্তনু মৈত্র ও মোনালি ঠাকুর—শোর তিন বিচারক প্রতি পর্বেই বাংলাদেশি এই প্রতিযোগীর গান শুনে মুগ্ধতা প্রকাশ করেন। মোনালি তো নিজেকে নোবেলের ভক্ত বলেই দাবি করেন। দর্শকরা ফেসবুকে প্রিয় গায়কের ফ্যান পেজ তৈরি করেছে বেশ কয়েকটি। দুই বাংলাতেই তৈরি হয়েছে তাঁর ভক্তকুল। ভালোবাসা দিবসের আগে এই ভক্তদের উদ্দেশে একটি ভিডিও বার্তা প্রকাশ করেন নোবেল। নোবেল বলেন, ‘অনেকেই আমার সঙ্গে দেখা করতে চান, ছবি তুলতে চান। প্রতিদিন হাজার হাজার ভক্ত তাঁদের এসব ইচ্ছার কথা অনলাইনে আমাকে জানান। সুযোগটা আমি কয়েকজনকে দিতে চেয়েছি, তবে শর্ত ছিল। ভালোবাসা দিবসে যারা সমাজের অবহেলিত মানুষকে রেস্টুরেন্টে একবেলা পেট ভরে খাওয়াবে বা সুবিধাবঞ্চিত মানুষ, পথশিশু ও রিকশাওয়ালাকে ব্র্যান্ডের পোশাক উপহার দেবে, তাঁদের সঙ্গে আমি নিজেই যোগাযোগ করে গেট টুগেদারে আমন্ত্রণ জানানোর ঘোষণা দিয়েছি।’

ভিডিওতে নোবেল জানিয়েছেন, কিভাবে কাজটা করতে হবে। ফেসবুকে ‘মহৎ’ কাজটির ছবি অথবা ভিডিও হ্যাশট্যাগ ‘স্প্রেডলাভউইথনোবেলম্যান’ দিয়ে প্রকাশ করতে হবে। নোবেলের এই ঘোষণায় অভূতপূর্ব সাড়া পড়েছে। শতাধিক ভক্ত তাদের মহৎ কাজের ছবি ও ভিডিও শেয়ার দিয়েছে ফেসবুকে। আপ্লুত নোবেল বলেন, ‘সত্যিই কৃতজ্ঞ এই ভক্তদের কাছে। আমি খুবই নগণ্য মানুষ, আমার সঙ্গে দেখা করলে বা ছবি তুললে ভক্তরা কতটা খুশি হবেন জানি না, তবে মহৎ কাজটি করার পর তাঁরা যে আত্মতৃপ্তি পাবেন সেটা সত্যিই অমূল্য। শুধু ১৪ ফেব্রুয়ারিই নয়, বছরের অন্য দিনগুলোতেও যারা এভাবে ভালোবাসা ছড়িয়ে দেবেন, আমি তাঁদের পাশে থাকব।’

কবে নাগাদ এই বিশেষ ভক্তদের নিয়ে গেট টুগেদার করবেন সেটাও তিনি বললেন, ‘১৮ অথবা ১৯ ফেব্রুয়ারি প্রথম ধাপে আয়োজনটা করব। দিনক্ষণ, স্থান চূড়ান্ত করে ভক্তদের জানিয়ে দেব।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা