kalerkantho

শুক্রবার । ৬ কার্তিক ১৪২৮। ২২ অক্টোবর ২০২১। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আবারও পাইরেসি আতঙ্ক

চলতি বছরের প্রায় সব ছবিই পাইরেসির কবলে

রংবেরং প্রতিবেদক   

১০ অক্টোবর, ২০১৫ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাইরেসি আতঙ্কে স্থবির হয়ে পড়েছে চলচ্চিত্র। নতুন কোনো ছবির ঘোষণা দিচ্ছেন না কোনো প্রযোজক-পরিচালক। চলতি বছর মুক্তি পাওয়া প্রায় সব ছবিই এর মধ্যে পাইরেসির কবলে পড়েছে। কোরবানির ঈদে মুক্তি পাওয়া বদিউল আলম খোকনের 'রাজাবাবু দ্য পাওয়ার', আব্দুল আজিজের 'আশিকি' থেকে শুরু করে রোজার ঈদে মুক্তি পাওয়া শাহীন সুমনের 'লাভ ম্যারেজ' ও 'অগ্নি ২' ছবিগুলোর এইচডি প্রিন্ট এখন সারা দেশে পাওয়া যাচ্ছে। যদিও আইনে উল্লেখ আছে, পাইরেটেড সিডি যার কাছে পাওয়া যাবে তাকেই অপরাধী চিহ্নিত করা হবে। কিন্তু এ ব্যাপারে টাস্কফোর্স কোনো কার্যকরী পদক্ষেপ নিচ্ছে না বলে মন্তব্য করেন এসব ছবির ক্ষতিগ্রস্ত প্রযোজকরা। 'রাজাবাবু দ্য পাওয়ার' ছবির পরিচালক খোকন বলেন, "পর পর তিনটি বড় বাজেটের ছবি বানিয়েছি-'মাই নেম ইজ খান', 'হিরো দ্য সুপারস্টার' ও 'রাজাবাবু দ্য পাওয়ার'। কিন্তু পাইরেসির কারণে প্রযোজক টাকা তুলে আনতে পারেননি। এক সপ্তাহের মধ্যেই ছবিগুলো পাইরেসি হয়ে গেছে। এসব ছবির প্রযোজকরা দ্বিতীয়বার আর ছবি নির্মাণে আগ্রহ দেখাননি। এভাবেই আমরা একের পর এক প্রযোজক হারাচ্ছি।'

একই কথা বলেন 'হিরো দ্য সুপারস্টার' ছবির প্রযোজক ও অভিনেতা শাকিব খান-'দুই কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যয় করে ছবিটি নির্মাণ করেছিলাম। অথচ লাভ তো দূরের কথা, পুঁজি ঘরে তুলতেই ঘাম ঝরেছে। ঘোষণা দিয়েছিলাম বছরে অন্তত দুটি ছবি নির্মাণ করব। এখন সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছি। পাইরেসি বন্ধ না হলে ছবি প্রযোজনা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ।'

২০১২ সালের পর আবারও পাইরেসির বিরুদ্ধে এক হচ্ছেন প্রযোজক-পরিচালক ও শিল্পী-কলাকুশলীরা। শিগগিরই পাইরেসির বিরুদ্ধে মানববন্ধনের ঘোষণা দেওয়া হবে। তা ছাড়া প্রধানমন্ত্রী বরাবর পুনরায় স্মারকলিপি প্রদান করবেন বলে জানান পরিচালক সমিতির মহাসচিব মুশফিকুর রহমান গুলজার।

 



সাতদিনের সেরা