kalerkantho

শুক্রবার । ৮ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৩ জুলাই ২০২১। ১২ জিলহজ ১৪৪২

বাফেট কেন বিটকয়েনে বিনিয়োগ করেন না

বাণিজ্য ডেস্ক   

২০ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাফেট কেন বিটকয়েনে বিনিয়োগ করেন না

ডিজিটাল মুদ্রা বিটকয়েনের মূল্য এরই মধ্যে ৬১ হাজার ডলারের মাইলফলক অতিক্রম করেছে। ফলে দ্রুত তেজি হয়ে ওঠা এই মুদ্রায় বিনিয়োগে আগ্রহী হয়ে উঠছেন অনেকেই। এ বছর বিশ্বের শীর্ষ ধনী এলন মাস্ক বিটকয়েনে বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছেন। এমনকি বিলম্বে এই বাজারে আসা অনেক বিনিয়োগকারী সুযোগ হারানোর বেদনায় ভুগছেন। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে বিশ্বখ্যাত বিনিয়োগকারী ওয়ারেন বাফেট কেন বিটকয়েনে বিনিয়োগ করছেন না? সম্প্রতি তিনি সোনায় বড় অঙ্কের বিনিয়োগ করেছেন। একসময় বাফেট বিটকয়েনকে ইঁদুর মারার বিষের সঙ্গে তুলনা করেছিলেন। গত বছর সিএনবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, ‘বিটকয়েনে আমার কোনো বিনিয়োগ নেই, আমার কোনো ক্রিপ্টোকারেন্সিও নেই, আমি এগুলোতে কখনই বিনিয়োগ করতে চাই না।’ বিশ্লেষকরা বলছেন, মূলত তিন কারণে বিটকয়েনে বিনিয়োগ করছেন না বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী ও বার্কশেয়ার হেথাওয়ের সিইও ওয়ারেন বাফেট।

 

বিটকয়েনের স্বতন্ত্র মূল্য নেই

এই বিলিয়নেয়ার বিনিয়োগকারী বিটকয়েনে খুব একটা আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। কারণ তিনি মনে করেন এটি উৎপাদনশীল সম্পদ নয়। বাফেট শেয়ারবাজার ও সোনায় বিনিয়োগ করেছেন। কারণ তিনি মনে করেন এই খাতগুলোর উৎপাদনশীল মূল্য আছে এবং অর্থপ্রবাহ আছে। কিন্তু বিটকয়েনের প্রকৃত মূল্য নেই। তিনি সিএনবিসিকে এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেছিলেন।

 

মুদ্রার মানদণ্ড পূরণ করে না

মুদ্রা হিসেবে হঠাৎ করেই বিটকয়েন ফুলেফেঁপে উঠেছে। কিন্তু অর্থ হওয়ার জন্য এটি কি তিনটি মানদণ্ড পূরণ করেছে? প্রথমত, এটি লেনদেন হতে হবে, দ্বিতীয়ত, সঞ্চয় করে রাখা এবং প্রয়োজন মতো ব্যবহারের সুযোগ থাকতে হবে এবং তৃতীয়ত, হিসাবের একক হিসেবে থাকতে হবে। বাফেটের মতে বিটকয়েনে এর কিছুই নেই বরং এটি মরীচীকা। তিনি বলেন, ‘মুদ্রার মূল্য বিটকয়েন ধারণ করে না। দীর্ঘদিন সঞ্চিত করে রেখে লেনদেনের সুযোগও নেই। এটির কোনো সঞ্চয় মূল্য নেই।’

 

বাফেট এটি বোঝেন না

শেয়ারবাজারের কল্যাণে ইতিহাসের অন্যতম সফল বিনিয়োগকারী ওয়ারেন বাফেট। তিনি বলেন, ‘যা আমি বুঝি সেখানে বিনিয়োগ করেছি। যে জিনিস সম্পর্কে আমার কোনো ধারণা নেই, কেন তা নিয়ে কাজ করতে যাব।’ কিন্তু মানুষ ঝুঁকি নিতে ভালোবাসে। অনুৎপাদনশীল সম্পদ নিয়ে এটি আরেকটি বড় সমস্যা। বাফেট বলেন, ‘যে জিনিস আপনি বোঝেন না, অথচ বোঝার চেয়েও বেশি উত্তেজিত। এ নিয়ে শুধু কল্পনায় ফানুস ওড়াচ্ছেন, তাহলে এটি ম্যাজিক ছাড়া আর কি?’

সূত্র : ইয়াহু ফিন্যান্স।



সাতদিনের সেরা