kalerkantho

শুক্রবার । ৪ আষাঢ় ১৪২৮। ১৮ জুন ২০২১। ৬ জিলকদ ১৪৪২

ঝামেলামুক্ত কর দিতে চান ব্যবসায়ীরা

করমুক্ত আয়সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব খুলনা চেম্বারের

গৌরাঙ্গ নন্দী, খুলনা   

৯ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিদ্যমান করনীতির কারণে ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তাই আসন্ন বাজেট সামনে রেখে খুলনা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির পক্ষ থেকে সরকারকে ২৪টি প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। ব্যবসায়ীদের মতে, আয়কর নীতিমালা এমনভাবে প্রণীত হওয়া প্রয়োজন, যাতে ব্যবসায়ীরা হয়রানি না হন। তাঁরা ঝামেলামুক্তভাবে সরকারকে রাজস্ব দিতে চান।

প্রস্তাবে আয়কর ট্রাইব্যুনালে ‘বিচার সদস্য’ পদ আবারও চালু করার কথা বলা হয়েছে। এই দাবির ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে, চাকরিরত আয়কর কমিশনারকে ট্রাইব্যুনালের সদস্য হিসেবে নিয়োগ দেওয়ায় তাঁরা স্বাধীনভাবে রায় দিতে পারেন না। এর পাশাপাশি আয়কর ট্রাইব্যুনালে আপিল দায়েরের ক্ষেত্রে ১০ শতাংশের পরিবর্তে ৫ শতাংশ আয়কর প্রদান ও ওয়েভার প্রথা বহাল রাখার দাবি করা হয়েছে। করদাতাদের হয়রানি না করা এবং করমুক্ত আয় সাড়ে তিন লাখ টাকা থেকে বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। নগদ ঋণকে আয় বলে গণ্য করার প্রথা বাতিল করা এবং কৃষি আয়ের জন্য রেয়াদ পুনর্বহাল করার দাবি করা হয়েছে।

ব্যবসায়ীদের এসব দাবির বিষয়ে খুলনা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক জোবায়ের আহমদ খান জবা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘কর আইনের অস্পষ্টতার কারণে ব্যবসায়ীদের হয়রানির শিকার হতে হয়। আমরা ব্যবসায়ীরা এই হয়রানির অবসান চাই। করনীতি বা করকাঠামো এমনভাবে তৈরি করা উচিত, যাতে ব্যবসায়ীরা ঝামেলাহীনভাবে কর প্রদান করতে পারে। কিন্তু আমাদের দেশে কর কর্মকর্তাদের দেখলে মানুষ ভয় পায়, এই সংস্কৃতির অবসান হওয়া উচিত। খুলনা চেম্বার কর্তৃক প্রস্তাবিত সুপারিশগুলো বাস্তবায়ন করা হলে ব্যবসায়ীসমাজ যেমন উপকৃত হবে, তেমনি সরকারের রাজস্ব আয়ও বাড়বে।’



সাতদিনের সেরা