kalerkantho

শুক্রবার । ১১ আষাঢ় ১৪২৮। ২৫ জুন ২০২১। ১৩ জিলকদ ১৪৪২

বেশি ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা

দেওয়ান আমিনুল ইসলাম শাহীন, সভাপতি, নিউ মার্কেট দোকান মালিক সমিতি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেশি ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা

করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। গত বছর সাধারণ ছুটিতে মার্কেট ও দোকানপাটগুলো বন্ধ থাকায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা প্রায় নিঃস্ব হয়ে গিয়েছে বলে জানান নিউ মার্কেট দোকান মালিক সমিতির সভাপতি দেওয়ান আমিনুল ইসলাম শাহীন। কালের কণ্ঠকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, এবার রোজা, বৈশাখ ও ঈদকে ঘিরে অনেকে বাড়তি ব্যবসার প্রস্তুতি নিয়েছে। বিভিন্ন ব্যবসায়ী বিভিন্ন পণ্য বিক্রির জন্য প্রস্তুত রেখেছেন। অনেক খুচরা ব্যবসায়ী ধারদেনা করে হলেও নতুন করে মাল তোলার প্রস্তুতি নিয়েছেন। তাঁরা এখন পাইকারি ব্যবসায়ীদের আগের বকেয়া দিয়ে নতুন করে মাল তুলবেন। এই মাল দেশের বিভিন্ন এলাকায় যাবে। তার মাধ্যমে আরো লাখ লাখ মানুষের জীবিকা নির্বাহ হবে। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা এভাবে গোটা অর্থনীতিকে সচল রাখবেন। সামনের উৎসবগুলোকে ঘিরে যে ব্যবসা হবে তাতে কিছুটা হলেও ক্ষতি পোষাতে পারবেন তাঁরা। কিন্তু এ মুহূর্তে যদি আবার করোনার কারণে সব কিছু বন্ধ হয়ে যায় তবে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন না ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। তাঁদের বাকি পুঁজিও শেষ হয়ে যাবে।

দেওয়ান আমিনুল ইসলাম শাহীন বলেন, ‘তবে করোনা যে হারে বাড়ছে তাতে প্রতিরোধে ব্যবস্থা অবশ্যই নিতে হবে। এ জন্য শুধু মার্কেট বন্ধ রাখলে ব্যবস্থা পুরো হবে না। বন্ধ রাখলে সব কিছুই বন্ধ রাখতে হবে। আর যদি সীমিত আকারে খোলা হয় তবে মার্কেটও সীমিত আকারে খোলা রাখা যায়। আসলে মানুষ গত কয়েক মাস করোনাকে ব্যাপকভাবে উপেক্ষা করেছে। এতেই করোনার সংক্রমণ বেড়েছে। এখন যদি আবার নিয়ন্ত্রণে আনতে হয় তবে সম্মিলিত প্রচেষ্টা লাগবে। যদি সব কিছু বন্ধ থাকে তবে আমরাও মার্কেট বন্ধ রাখব।’