kalerkantho

বুধবার  । ১৮ চৈত্র ১৪২৬। ১ এপ্রিল ২০২০। ৬ শাবান ১৪৪১

বিশ্বের শীর্ষ পাঁচ তার কম্পানি

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্বের শীর্ষ পাঁচ তার কম্পানি

প্রিসমিয়ান গ্রুপ

ইলেকট্রিক কেবল উত্পাদন এবং আয়ের দিক থেকে বিশ্বের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান বিবেচনা করা হয় প্রিসমিয়ান গ্রুপকে। প্রতিষ্ঠানটি ২০১১ সালে ইতালির মিলান শহরে কার্যক্রম শুরু করে। ইলেকট্রিক্যাল পাওয়ার ট্রান্সমিশন এবং টেলিকমিউনিকেশন কেবল উত্পাদন করে প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হয়। তবে যাত্রা শুরুর আগে ২০০৯ সালে প্রিসমিয়ান শতবর্ষী কম্পানি ড্রাকার সঙ্গে একীভূত হয়। যারা মূলত বৈদ্যুতিক তার উত্পাদন করত।  প্রিসমিয়ানের রাজস্ব আয় ১১ বিলিয়ন পাউন্ড। প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছে ৩০ হাজার কর্মী।

২০১৮ সালে প্রিসমিয়ান আরেক শীর্ষ প্রতিষ্ঠান জেনারেল কেবল কম্পানিকে অধিগ্রহণ করে।

 

নেক্সানস

এই প্রতিষ্ঠানটিকে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম কেবল প্রস্তুতকারক হিসেবে ধরা হয়। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয় ফ্রান্সের প্যারিসে। বিশ্বের ৩৪টি দেশে নেক্সানসের ২৬ হাজার কর্মী কাজ করছে। প্রতিষ্ঠানটির রাজস্ব আয় ৬.৪ বিলিয়ন পাউন্ড। ২০০০ সালে টেলিকমিউনিকেশন কম্পানি এলকাটেলকে অধিগ্রহণের পর নেক্সানসের যাত্রা শুরু হয়। এলকাটেলেরও কেবল উত্পাদনে শতবছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে।

 

সুমিতম ইলেকট্রিক ইন্ডাস্ট্রিজ

জাপানের ওসাকায় ১৮৯৭ সালে স্থাপিত হয় সুমিতম ইলেকট্রিক ইন্ডাস্ট্রিজ। প্রতিষ্ঠানটি দুনিয়াজুড়ে ইলেকট্রিক ওয়্যার ও অপটিক্যাল ফাইবার কেবল উত্পাদন ও সরবরাহ করছে। প্রতিষ্ঠানটির রাজস্ব আয় ২৯ বিলিয়ন ডলার। বিশ্বের ৩০টি দেশে দুই লাখ ৭০ হাজার কর্মী কাজ করছে সুমিতমে। টোকিওর নাগোয়া স্টক এক্সচেঞ্জ ও ফুকুকা স্টক এক্সচেঞ্জে প্রতিষ্ঠানটি তালিকাভুক্ত আছে। 

 

এলএস কেবল অ্যান্ড সিস্টেম

দক্ষিণ কোরিয়ায় জন্ম নেওয়া এলএস কেবল অ্যান্ড সিস্টেম বর্তমানে বিশ্বব্যাপী বিস্তৃত। প্রতিষ্ঠানটি ১৯৬২ সালে যাত্রা শুরু করলেও কেবল উত্পাদন শুরু করে ১৯৬৯ সালে। প্রতিষ্ঠানটিতে ১০ হাজার কর্মী রয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানটি কেবল প্রস্তুত ছাড়াও বেশ কিছু ইঞ্জিনিয়ারিং সার্ভিস দিয়ে থাকে। প্রতিষ্ঠানটির রাজস্ব প্রায় আট হাজার কোটি ডলার।

 

ফুরুকাওয়া ইলেকট্রিক

এটি জাপানের অন্যতম ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিকস কম্পানি। ইউকোহামায় ১৮৮৪ সালে ফুরুকাওয়া কম্পানির কার্যক্রম শুরু হয়। জাপানি উদ্যোক্তা ফুরুকাওয়া জাইবাস্তু এই প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলেন। তাঁর মাধ্যমেই বিশ্বের কেবল খাত নতুন মাইলফলক সৃষ্টি করে। তিনি জীবদ্দশায় ১৫টি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন। এই প্রতিষ্ঠানটি নিক্কি ২২৫ স্টক ইনডেক্সে তালিকাভুক্ত রয়েছে। জাপানের বাইরে ইউরোপ, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকায় প্রতিষ্ঠানটি কেবল উত্পাদন করছে। প্রতিষ্ঠানে ৫২ হাজার কর্মী রয়েছে এবং তাদের রাজস্ব আয় সাত বিলিয়ন ডলার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা