kalerkantho

শনিবার । ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

২০৩০ সালে ১৯৩ দেশে পালিত হবে কাস্টমস দিবস

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রতিবছরের মতো এবারেও ২৬ জানুয়ারি আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস পালিত হবে। এ উপলক্ষে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) শোভাযাত্রা, সেমিনার, সচেতনতামূলক কার্যক্রম, প্রশিক্ষণ, বিশেষ অপারেশন, মহড়া-অংশীজনদের নিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। মূলত শুল্ক পরিশোধে সচেতনতা বাড়াতে এবং উত্সাহিত করতে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবসে এসব আয়োজন করা হয়েছে।

এনবিআরসংশ্লিষ্টরা দাবি করেন, কাস্টমস দিবসে বিভিন্ন সচেতনতামূলক কার্যক্রম গ্রহণ করা হলে রাজস্ব পরিশোধে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। দেশের মধ্যে রাজধানীসহ চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, বেনাপোল, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর, সিলেট এবং ময়মনসিংহে এবার কাস্টমস দিবস পালন করা হবে।

২০০৯ সালে প্রথমবার সারা বিশ্বে একযোগে কাস্টমস দিবস পালন করা হয়। গত কয়েক বছর থেকে প্রায় দেড় শতাধিক দেশে কাস্টমস দিবস পালন করা হয়। ওয়ার্ল্ড কাস্টমস অর্গানাইজেশন (ডাব্লিউও) ২০৩০ সালের মধ্যে জাতিসংঘের ১৯৩টি দেশে কাস্টমস দিবস পালন করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে।

প্রতিবছর আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবসে একটি সুনির্দিষ্ট প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবসের স্লোগান নির্ধারণ করা হয়। এ স্লোগান তৈরি হয় প্রাসঙ্গিক, অর্থবহ ও উদ্দীপনামূলক। প্রতিপাদ্যে কয়েকটি শব্দের মধ্যে বর্তমান সময়ে কাস্টমসের উদ্দেশ্য, ভূমিকা ও ক্রমবিকাশ অত্যন্ত জোরালোভাবে তুলে ধরা হয়। গত বছর কাস্টমস দিবসের স্লোগান ছিল SMART borders for Seamless Trade, Travel and Transport. এবারে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবসের প্রতিপাদ্য Fostering Sustainability for People, Prosperity and the Planet.

এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া কালের কণ্ঠকে বলেন, এবারের কাস্টমস দিবসের প্রতিপাদ্য অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক ও গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিবছর কাস্টমস দিবসে এনবিআর কর্মকর্তারা নতুন উদ্যোগ নিয়ে আরো এক ধাপ এগিয়ে যান।

দেশ ও নাগরিকের সুরক্ষায় এবারের কাস্টমস দিবসে মেধাস্বত্ব সংরক্ষণে জোর দেওয়া হয়েছে। নকল ও মানহীন পণ্যের আমদানি রোধকল্পে মেধাস্বত্ব সংরক্ষণে বাংলাদেশ কাস্টমস তত্পর রয়েছে। এ ছাড়া আন্তর্জাতিক সন্ত্রাস, ব্যাপক বিধ্বংসী আগ্নেয়াস্ত্রের চোরাচালান প্রতিরোধ এবং রাসায়নিক পদার্থের অবৈধ রূপান্তর নিরোধ কার্যক্রমে কাস্টমস প্রশাসনের সক্ষমতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে ওয়ার্ল্ড কাস্টমস অর্গানাইজেশন (ডাব্লিউসিও) বিশ্বব্যাপী নিরাপত্তা কার্যক্রম পরিচালনা করেছে।

এবারের কাস্টমস দিবসকে সামনে রেখে অর্থপাচার এবং সন্ত্রাসে অর্থায়ন বন্ধে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। এরই মধ্যে শুল্ক গোয়েন্দা তিন হাজার ২০ কোটি টাকা অর্থপাচারের অভিযোগে ৭৮টি মামলা দায়ের করেছে।

বিশ্বব্যাপী টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট লক্ষ্য অর্জনে বিশ্বব্যাপী ও অভিযাত্রার সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণার উদ্দেশ্যে ডাব্লিউসিও এবারের কাস্টমস দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা