kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

করবান্ধব সেবাই আমাদের লক্ষ্য

কালিপদ হালদার, সদস্য (আয়কর প্রশাসন ও ব্যবস্থাপনা), এনবিআর

১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করবান্ধব সেবাই আমাদের লক্ষ্য

ছবি : মঞ্জুরুল করিম

গত বছরের চেয়ে টিআইএন বেড়েছে ৮ লাখ। করদাতার সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ২০ শতাংশ। তাঁরাও এবারের আয়কর মেলায় আসবেন। এবার আমরা ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছি। অন্য সময়ের চেয়ে জায়গাও বেশি

গত বছরের চেয়ে টিআইএন বেড়েছে ৮ লাখ। করদাতার সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ২০ শতাংশ। তাঁরাও এবারের আয়কর মেলায় আসবেন। এবার আমরা ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছি। অন্য সময়ের চেয়ে জায়গাও বেশি। সেবার পরিধি অনেক বাড়ানো হয়েছে। মেলায় বিপুলসংখ্যক মানুষের সমাবেশ হবে বলে আমরা আশা করছি। এটা ১০ বছরের সংস্কৃতি। এবার আমরা মেলার জন্য ডেডিকেটেড ওয়েবসাইট করেছি। এ সাইটে করদাতারা ভার্চুয়াল মেলার আবহ পাবেন। যাবতীয় তথ্য জানতে পারবেন। এতে করে তাঁদের সময় বাঁচবে। এত দিন মেলায় রিটার্ন জমা দিতে পারলেও কর পরিশোধ করতে হতো ব্যাংকে গিয়ে। তবে এবার আমরা বিকাশ ও রকেটে কর পরিশোধের ব্যবস্থা করেছি। আশা করি এর মাধ্যমে করদাতারা স্বচ্ছন্দে কর পরিশোধ করতে পারবেন। এতে ভোগান্তি কমবে। শুধু মেলায়ই নয়; মেলার পরেও যাতে করদাতারা হয়রানি ও ভোগান্তিমুক্তভাবে কর দিতে পারেন, সেবা নিতে পারেন, সে জন্য কর অঞ্চল ও সার্কেলে আমরা একই পরিবেশ বজায় রাখার চেষ্টা করছি। পরিস্থিতির বেশ উন্নতি হয়েছে। নিশ্চয়ই বর্তমান অবস্থা গেল এক দশকে অনেক পরিবর্তন হয়েছে। কর মেলায় কর সংস্কৃতিতে এক ধরনের ইতিবাচক পরিবর্তন নিয়ে এসেছে। সবাই সচেতন হয়েছে। অনলাইনে রিটার্ন দাখিল করা যাচ্ছে। তবে পুরো প্রক্রিয়া অনলাইনে করতে একটু সময় লাগবে। করের বিষয়টি অনেক সংবেদনশীল বিষয়। নিরাপত্তার বিষয়টিও গুরুত্বপূর্ণ। তারপরও সতর্কতার সঙ্গে সব কিছুর সমন্বয় করে সর্বোচ্চ সেবা দেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। আমাদের মূল লক্ষ্যই হলো মানুষকে সচেতন করা, কর কমপ্লায়েন্ট করা। শুধু রাজস্ব আয়ই আমাদের মূল্য লক্ষ্য নয়। রাজধানীর পাশাপাশি আমরা সারা দেশেই এ কর মেলার পরিধি বাড়িয়েছি। সেখানে আমাদের কর্মকর্তারা করদাতাদের উন্নত সেবা দেওয়ার জন্য তৈরি আছেন। গেল মেলায় পাঁচ লাখ রিটার্ন দাখিল হয়েছে। এবার আমরা আশা করছি তা ছয় লাখ হবে। রাজস্ব আয়ও বাড়বে। না বাড়লেও জনসমাবেশ বেশি হবে। মানুষকে করবান্ধব সেবা দিতে পারলে এটাই হবে আমাদের সন্তুষ্টি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা