kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

এমপি মনসুরকে সতর্কবার্তা

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এমপি মনসুরকে সতর্কবার্তা

জেলা পরিষদ নির্বাচনে আচরণবিধি না মানার অভিযোগে রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনের সংসদ সদস্য ডা. মনসুর রহমানকে সতর্ক করে চিঠি দিয়েছেন রিটার্নিং অফিসার। গত বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রিটার্নিং অফিসার আবদুল জলিল স্বাক্ষরিত চিঠিটি এমপির বাসায় পৌঁছে দেওয়া হয়।

এর আগে নির্বাচনী আচরণবিধি না মেনে নির্বাচনী সভায় অংশ নেওয়ায় গত বুধবার রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনকে সতর্ক করেন রিটার্নিং অফিসার।

এদিকে রাজশাহী জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী আক্তারুজ্জামান আক্তার ও তাঁর কর্মী-সমর্থকদের নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে।

বিজ্ঞাপন

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে দুর্গাপুর পৌর ভবনে এ ঘটনা ঘটে।

আক্তারুজ্জামান অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার বিকেল পৌনে ৩টার দিকে নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে দুর্গাপুর পৌরসভার মেয়র এবং কাউন্সিলরদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পৌর ভবনে যান তিনি। এ সময় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাকিল খান ও সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান রিপনের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাঁদের পৌর ভবন থেকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করেন। তাঁরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর নেতাকর্মীদের লাঞ্ছিতও করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাকিল খান বলেন, ‘চেয়ারম্যান প্রার্থী আক্তারুজ্জামান ওই সময় সেখানে ছিলেন না। তাঁর কর্মী-সমর্থকরা ছিলেন বিধায় তাঁদের চিনতে পারিনি। অপরিচিত লোকজন পৌরসভায় ঢোকার কারণে আমরা জিজ্ঞেস করেছি তাঁরা কেন এসেছেন। আগামী ১৭ অক্টোবর রাজশাহী জেলা পরিষদ নির্বাচন। ’

অন্যদিকে শেরপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিদ্রোহী প্রার্থী হুমায়ুন কবীরকে নিয়ে আওয়ামী লীগে উত্তেজনা চলছে। এরই মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের পদসহ সব পদ থেকে তাঁকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এর পর থেকেই পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করে একপক্ষ অন্য পক্ষকে দোষারোপ করছে। এতে ক্রমেই নির্বাচনের পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে।

নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় গত মঙ্গলবার জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় হুমায়ুন কবীরকে দলের সব পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। পরদিন বুধবার শহরের খরমপুর এলাকায় সংবাদ সম্মেলন করে হুমায়ুন কবীর তাঁকে বহিষ্কারের বিষয়টি এখতিয়ারবহির্ভূত বলে উল্লেখ করেন। এরপর গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেন জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন। আগামী ২৭ অক্টোবর শেরপুর জেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

 



সাতদিনের সেরা