kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ নভেম্বর ২০২২ । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

নিয়মিত কোর্স বন্ধ, চলছে সান্ধ্য কোর্স

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) নিয়মিত কোর্স বন্ধ রেখে চলছে সন্ধ্যাকালীন কোর্স। ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত চারটি বিভাগের আওতায় সপ্তাহে দুই দিন বিকেল ৪টা হতে রাত ৮টা পর্যন্ত চলছে এসব কোর্সের ক্লাস। ক্লাস চলাকালীন ওই সব কক্ষে ব্যবহার করা হচ্ছে এসি। ফলে অপচয় হচ্ছে বিদ্যুৎ, বঞ্চিত হচ্ছেন নিয়মিত শিক্ষার্থীরা।

বিজ্ঞাপন

এদিকে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের জন্য প্রতি বৃহস্পতিবার সব ধরনের ক্লাস-পরীক্ষা ও অফিস বন্ধ রাখা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ক্যাম্পাসজুড়ে চলছে সমালোচনার ঝড়।

জানা যায়, শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের নির্দেশনা মোতাবেক জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের এক জরুরি সভায় সাপ্তাহিক ছুটি এক দিন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এদিকে সন্ধ্যাকালীন কোর্স বন্ধের জন্য গত বছরের ১১ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন থেকে দেওয়া হয়েছে চিঠি। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে এসব কোর্স বন্ধ করা হলেও বেরোবিতে সেই নির্দেশনা অমান্য করা হচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের জন্য ক্যাম্পাসে এক দিন ক্লাস ও অফিস বন্ধ রাখা হলেও রীতিমতো চলছে সন্ধ্যাকালীন কোর্স। তাহলে বিদ্যুৎ সাশ্রয় করা গেল কোথায়?’

এ বিষয়ে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন মতিউর রহমান বলেন, ‘সন্ধ্যাকালীন কোর্সের যে ফি নেওয়া হয় সেখান থেকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ দেওয়া হয়। সেই অর্থের তুলনায় বিদ্যুৎ খরচ নগণ্য। ’

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী আলমগীর চৌধুরী বলেন, ‘সন্ধ্যাকালীন কোর্সের সময়টা সংকুচিত করে একটা নীতিমালা করা যেতে পারে। ’



সাতদিনের সেরা