kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাস্তায় ছেলের গলাকাটা লাশ হাসপাতালে মেয়ের মৃত্যু

সালথা-নগরকান্দা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাস্তায় ছেলের গলাকাটা লাশ হাসপাতালে মেয়ের মৃত্যু

একই দিনে দুই সন্তানকে হারিয়ে শোকে স্তব্ধ হয়ে গেছে পরিবারসহ পুরো এলাকা। ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদপুরের সালথায়।

গতকাল দুপুরে মুঠোফোনে বাবা আইয়ুব আলী শেখ কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমি বাসের হেলপারি করি। আমার ছেলে রাজিব পার্শ্ববর্তী কোমরপুর এলাকায় একটি সিএনজি ভাড়া নিয়ে চালাত।

বিজ্ঞাপন

গত শুক্রবার সকালে বাড়ি থেকে সিএনজি গাড়ি নিয়ে বের হয় রাজিব। এরপর সে আর বাড়িতে ফিরে না আসায় রবিবার সকালে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় জিডি করি। ওই দিন সন্ধ্যায় সালথার মেম্বার গট্টি এলাকায় অজ্ঞাতপরিচয় লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে সালথা থানায় এসে ছেলের লাশ শনাক্ত করে রাতেই অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করি। ’

তিনি আরো বলেন, ‘মামলা করে রাতে বাড়িতে ফিরে খবর পাই আমার মেয়ে গর্ভবতী বিউটি আক্তার ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে দুটি যমজ ছেলেসন্তান প্রসব করতে গিয়ে মারা গেছে। সন্তানরা বর্তমানে শিশু হাসপাতালে রয়েছে। আজ (গতকাল) সকাল ১০টায় মেয়ের জানাজা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়। আর ছেলের লাশের ময়নাতদন্ত শেষে বাদ জোহর জানাজা শেষে তাঁর দাফন করা হয়। আমার পাঁচ সন্তানের মধ্যে দুজন চলে গেল। ’ 

সালথা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আওলাদ হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে গত শুক্রবার রাতেই কোনো একসময় চালক রাজিবকে গলা কেটে হত্যা করে তাঁর লাশ সড়কের পাশে রেখে সিএনজি গাড়িটি নিয়ে চলে যায় ছিনতাইকারীরা। রবিবার সন্ধ্যার আগে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে তাঁর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে সোমবার সকালে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে সালথা থানায় অজ্ঞাতপরিচয় তিন-চারজনের নামে একটি হত্যা মামলা করেছেন।

 

 

 



সাতদিনের সেরা