kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সুদের টাকা দিতে না পেরে যুবকের আত্মহত্যা

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২০ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুদের টাকা দিতে না পেরে যুবকের আত্মহত্যা

ফয়সাল আহমেদ সৌরভ

স্থানীয় দুই সুদ ব্যবসায়ীর কাছ থেকে এক লাখ টাকা নিয়েছিলেন সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার ফয়সাল আহমেদ সৌরভ (৩০)। তিন লাখ টাকা সুদ দেওয়ার পরও আরো সাড়ে তিন লাখ টাকা দাবি করে তাঁরা। টাকা দিতে না পারায় গত বৃহস্পতিবার ফয়সালের পাথর বোঝাই নৌকা আটকে দেয় এক সুদখোর। নিরুপায় হয়ে তিনি বাড়ি ফিরে ওই দিন সন্ধ্যায় ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন।

বিজ্ঞাপন

রাত ৮টার দিকে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

উপজেলার বালিজুরী ইউনিয়নের পাতারী গ্রামের আজিজুর রহমান ওরফে মকদ্দসের বড় ছেলে সৌরভ। তিন মাস বয়সী এক কন্যাসন্তান রয়েছে তাঁর। এ ঘটনায় সৌরভের পিতা আজিজুর রহমান বাদী হয়ে দুই সুদখোরের বিরুদ্ধে তাহিরপুর থানায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে মামলা করেছেন।

আসামীরা হলেন উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের নূরপুর গ্রামের মতি মিয়ার ছেলে রফিক মিয়া ও বালিজুরী ইউনিয়নের আনোয়ারপুর বাজারের মৃত আব্দুল কাহার ওরফে মুসলিম মেম্বারের ছেলে শফিক মিয়া।

জানা যায়, মৃত্যুর কিছুক্ষণ আগে সৌরভ তাঁর ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেন, ‘...এক লাখ টাকা এনেছিলাম সুদে। তিন লাখ টাকা দিয়েছি, এখনো সাড়ে তিন লাখ পায়। এই রফিক আর সফিকের লাগি আত্মহত্যা করলাম। ’

স্ট্যাটাস দেখে স্বজন ও গ্রামবাসী তাঁকে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। রাত ৮টার দিকে  পাতারী ও শান্তিপুর গ্রামের মধ্যবর্তী এক নির্জন স্থানে গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁকে পাওয়া যায়। পরে পার্শ্ববর্তী বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিত্সক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

তাহিরপুর থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানা মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।



সাতদিনের সেরা