kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

শহরে শিকলবন্দি হাতির কসরত

বান্দরবান

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান   

২০ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শহরে শিকলবন্দি হাতির কসরত

বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইন লঙ্ঘন করে হাতিশাবকটিকে শিকলবন্দি করে কসরত দেখাচ্ছেন মাহুত। গতকাল বান্দরবান শহরের রাজার মাঠসংলগ্ন প্রধান সড়ক থেকে তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

বান্দরবান শহরে শিকলবন্দি অবস্থায় হাতি নিয়ে ঘুরে বেড়ানোর ঘটনাটি ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। এ ধরনের ঘটনা বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে জানান বান্দরবান পাল্পউড বাগান বিভাগের ডিএফও মাহমুদুল হাসান। জানা গেছে, শোভাবর্ধন হিসেবে জন্মাষ্টমীর আনন্দ শোভাযাত্রার অগ্রভাগে রাখার জন্য অর্থের বিনিময়ে গতকাল শুক্রবার হাতিশাবকটি আনা হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত শোভাযাত্রা শুরুর আগেই উত্সবস্থল রাজার মাঠের প্রাঙ্গণ থেকে সরিয়ে নেওয়া হয় এটি।

বিজ্ঞাপন

একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি শিকলবন্দি হাতিটিকে দেখার পর আপত্তি জানান। এর পরই হাতিটিকে সরিয়ে নেওয়া হয়। এর আগে প্রশাসন, পুলিশ ও বন বিভাগের সদস্যদের সামনেই শিকলবন্দি হাতিশাবকটি দিয়ে রাজার মাঠসংলগ্ন প্রধান সড়কে নানা কসরত দেখানো হচ্ছিল। পিঠের ওপর বসা অল্প বয়সী এক মাহুত এবং নিচে রশি ধরে একজন সহকারী হাতিটিকে নিয়ন্ত্রণ করছিল।

স্থানীয়রা ধারণা করছে, হাতিশাবকটি সাম্প্রতিক সময়ে ধরা হয়েছে। পোষ মানেনি বলেই এটিকে শিকল দিয়ে পেঁচিয়ে বেঁধে রাখতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে বক্তব্য জানার জন্য ফোন দিলে বান্দরবান বন বিভাগের ডিএফও হক মাহবুব মোরশেদ কল ধরেননি। তবে বান্দরবান পাল্পউড বাগান বিভাগের ডিএফও মাহমুদুল হাসান বলেন, এই হাতিশাবকের জন্য কোনো লাইসেন্স ইস্যু হয়েছে কি না, তিনি জানেন না। লাইসেন্স থাকলেও লাইসেন্স ইস্যুকারী কর্তৃপক্ষের আওতাধীন বনে হাতিটির থাকার কথা। এটিকে শিকল পরিয়ে লোকালয়ে নিয়ে আসা বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে জানান তিনি।

 



সাতদিনের সেরা