kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

লাখ টাকার ভোল মাছ

বাগেরহাট প্রতিনিধি   

২০ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লাখ টাকার ভোল মাছ

বঙ্গোপসাগরে জেলের জালে ধরা পড়ে ভোল মাছ। গতকাল শুক্রবার সেটি বাগেরহাট কেবি বাজার পাইকারি মৎস্য আড়তে বিক্রির জন্য তোলা হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

বঙ্গোপসাগরে জেলের জালে প্রায় এক লাখ টাকা মূল্যের একটি ভোল মাছ ধরা পড়েছে। বুধবার রাতে সাগরে জাল ফেলতেই মাছটি ধরা পড়ে।

ভোল মাছ ধরা পড়ার খবর মুহূর্তের মধ্যে জেলে থেকে মাছ ব্যবসায়ীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। শুক্রবার মাছটি বাগেরহাট কেবি বাজার পাইকারি মৎস্য আড়তে বিক্রির জন্য তোলা হয়।

বিজ্ঞাপন

নিলামে ডাকের মাধ্যমে সাড়ে ১৯ কেজি ওজনের মাছটি ৮৫ হাজার টাকায় ক্রয় করেন এক মাছ ব্যবসায়ী। প্রতি কেজির মূল্যে পড়েছে চার হাজার ৩৫৮ টাকা। বরগুনার পাথরঘাটার মাছ ব্যবসায়ী মাসুমের এফবি আলাউদ্দিন নামের ট্রলারে জেলেদের জালে ওই মাছটি ধরা পড়ে।

চিকিত্সকরা জানান, সামুদ্রিক ভোল মাছের ফুসফুস দিয়ে অস্ত্রোপচার কাজে ব্যবহৃত সুতাসহ চিকিৎসা সরঞ্জাম তৈরি করা হয়। ওই মাছ ক্রয় করার পর নানা প্রক্রিয়ার মাধ্যমে চিকিৎসাবিজ্ঞানের কাজে ব্যবহার উপযোগী বিভিন্ন সরঞ্জাম তৈরি করা হয়। এই কারণে এ মাছের মূল্য বেশি।

এফবি আলাউদ্দিন ট্রলারের মাঝি জাফর আলী জানান, সাগরে বৈরী আবহাওয়ার কারণে তাঁদের জালে ইলিশ ধরা পড়ছিল না। ফিরে আসার আগে বুধবার রাতে তাঁরা জাল ফেলেন। জাল তুলতেই ভোল মাছটি উঠে আসে। মূল্যবান ভোল মাছ ধরা পড়ায় তাঁরা অনেক খুশি। পরে শুক্রবার বাগেরহাট কেবি বাজারে নিলামে মাছটি বিক্রি করা হয়।

বাগেরহাট কেবি বাজার মৎস্য আড়তদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক অনুপ কুমার বিশ্বাস জানান, ভোল মাছটি বিক্রির জন্য তাঁর আড়তে তোলা হয়। নারী প্রজাতির মাছটি ৮৫ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়েছে। কেবি বাজারের আলামিন নামের এক মাছ ব্যবসায়ী এটি ক্রয় করেছেন। মাছটি পুরুষ প্রজাতির হলে প্রায় দুই লাখ টাকা দামে বিক্রি হতো বলে তিনি জানান।

বাগেরহাট কেবি বাজার আড়তদার সমিতির সভাপতি আবেদ আলী শেখ জানান, ভোল মাছের পেটের ভেতরের অংশ দিয়ে ওষুধ তৈরি হয়। এ জন্য ওই মাছের অনেক দাম। এখান থেকে ভোল মাছ ক্রয় করার পর ক্রেতারা উচ্চ মূল্যে বিক্রির জন্য চট্টগ্রামে চালান দেন। বছরে দুই-একবার ভোল মাছ এই আড়তে আসে।



সাতদিনের সেরা