kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ঘরের জন্য ভিক্ষুকের কাছ থেকে ঘুষ

সালথায় জনপ্রতিনিধির স্বামী গ্রেপ্তার

সালথা-নগরকান্দা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি   

১৭ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফরিদপুরের সালথায় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাইয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে এক ভিক্ষুকের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার অভিযোগে হায়দার মোল্লা (৫৫) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন সালথা থানার ওসি। গ্রেপ্তার হায়দার মোল্লা সালথা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রূপা বেগমের স্বামী ও মাঝারদিয়া ইউনিয়ন কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি।

জানা গেছে, টাকা আত্মসাতের ঘটনায় গত সোমবার সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী ওই প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক বাদী হয়ে হায়দার মোল্লা ও তাঁর শ্যালক মোকাদ্দেস মাতুব্বরের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন।

বিজ্ঞাপন

মামলার পর রাতেই সদরের থানা মোড় থেকে হায়দার মোল্লাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ভুক্তভোগী প্রতিবন্ধী ভিক্ষুকের নাম আব্দুর রহমান (৫০)। তিনি উপজেলার মাঝারদিয়া ইউনিয়নের কুমারপট্টি গ্রামের বাসিন্দা। তাঁর পরিবারের অভিযোগ, পাঁচ মাস আগে আব্দুর রহমানকে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের একটি ঘর পাইয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে ২৫ হাজার ৫০০ টাকা হাতিয়ে নেন হায়দার মোল্লা। কিন্তু দীর্ঘদিনেও তাঁকে ঘরের ব্যবস্থা করে দেননি। পরে টাকা ফেরত চাইলে ভয় দেখাতে শুরু করেন তিনি।

গ্রেপ্তার হায়দার মোল্লার স্ত্রী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান (প্যানেল চেয়ারম্যান) রূপা বেগম বলেন, ‘ঘর দেওয়ার কথা বলে আমার স্বামী কারো কাছ থেকে কোনো টাকা-পয়সা নেয়নি। প্রতিবন্ধী আব্দুর রহমান ঘর পায়নি বলে উল্টাপাল্টা অভিযোগ করছে। এটা ষড়যন্ত্র। আমি আব্দুর রহমানের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা আমাকে বলেছে, কোনো টাকা-পয়সার লেনদেন হয়নি। সেসব কল রেকর্ড আমার কাছে আছে। ’

সালথা থানার ওসি শেখ সাদিক বলেন, ‘হায়দার মোল্লার বিরুদ্ধে ঘর পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে টাকা নেওয়া ও হুমকিধমকি দেওয়ার অভিযোগ এনে সালথা থানায় মামলা করেন আব্দুর রহমান নামের এক প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক। পরে এই ঘটনায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ বিষয় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে কাজ করছে পুলিশ। ’



সাতদিনের সেরা