kalerkantho

শুক্রবার । ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

বোয়ালমারী

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা

আশুগঞ্জে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার প্রবাসীর স্ত্রী, থানায় মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

১৬ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গত রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার রূপাপাত ইউনিয়নের ইচাডাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত রাসেল সিকদারকে (২১) রাতেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নিহত স্কুলছাত্রীর নাম ফারিহা খানম (১১)।

বিজ্ঞাপন

সে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার নড়াইল এম এ মান্নান উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ও ইচাডাঙ্গা গ্রামের মোক্তার হোসেনের মেয়ে। অভিযুক্ত রাসেল সিকদার একই এলাকার মানোয়ার সিকদারের ছেলে।

ভুক্তভোগী পরিবারের দাবি, গত রবিবার সন্ধ্যায় ফারিহাকে বাড়িতে ডেকে নেয় রাসেল। এরপর তাকে বাথরুমে নিয়ে ধর্ষণ শেষে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে যায়। পরে অনেক খোঁজাখুঁজির পর রাসেলদের বাথরুম থেকে ফারিহার নিথর দেহ উদ্ধার করে পাশের আলফাডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। খবর পেয়ে বোয়ালমারী থানার পুলিশ অভিযুক্ত রাসেলকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে ফরিদপুরের সহকারী পুলিশ সুপার (মধুখালী-বোয়ালমারী ও আলফাডাঙ্গা সার্কেল) সুমন কর বলেন, ‘এ ঘটনায় গতকাল সোমবার বিকেলে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে বোয়ালমারী থানায় একটি মামলা করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, মেয়েটিকে ধর্ষণের পর গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত কারণ জানা যাবে। ’

এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে এক প্রবাসীর স্ত্রী সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করে তাঁর মা থানায় মামলা করেছেন। গত রবিবার রাতের এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুজনকে গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। ধর্ষণের শিকার ওই নারী জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। অভিযুক্তরা হলেন উপজেলার চর চারতলা গ্রামের সিয়াম (২৩) ও একই উপজেলার আড়াইসিধা গ্রামের বিজয় মিয়া (২৮)। আশুগঞ্জ থানার ওসি আজাদ রহমান বলেন, অভিযুক্ত বিজয়ের বিরুদ্ধে মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধে সাতটি ও সিয়ামের বিরুদ্ধে একটি ডাকাতি প্রস্তুতির মামলা রয়েছে। তবে এসব মামলায় তাঁরা জামিনে রয়েছেন। তাঁদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

 



সাতদিনের সেরা