kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ঝিকরগাছা

টেপ দিয়ে মুখ আটকে ডাকাতি, প্রহরীর মৃত্যু

দোকান থেকে ২৫টি গাড়ির ব্যাটারি নিয়ে যায়

ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধি   

১৫ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যশোরের ঝিকরগাছা পৌর সদরে গত শনিবার রাতে ডাকাতি হয়েছে। এ সময় এক নৈশ প্রহরীর মৃত্যু হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাত পৌনে ৩টার দিকে পৌর সদরের রাজাপটির ঝিকরগাছা অটো ইলেকট্রিক্যাল ওয়ার্কশপ ব্যাটারির দোকানে ডাকাতি হয়। ডাকাতদল প্রথমে বাজারের নৈশ প্রহরী সামাদ, সুকুমার, ইউসুফ ও কামালের হাত-পা বেঁধে মুখে কসটেপ দিয়ে আটকিয়ে দোকানের পাশে ফেলে রাখে।

বিজ্ঞাপন

এরপর ওই দোকান থেকে ২৫টি গাড়ির ব্যাটারি নিয়ে যায়। দোকান মালিক খায়রুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘ব্যাটারির দাম প্রায় চার লাখ টাকা হবে। ’

গতকাল রবিবার সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, ওই দোকান ছাড়াও মিজান ট্রেডার্সের দোতলার কলাপসিবল গেটের তালা, শাওন ফার্নিচার দোকানের তালা এবং সানভিকা এন্টারপ্রাইজ ব্যাটারির দোকানের তালা কেটেছে ডাকাতদল। তবে ওই দোকানগুলো থেকে মালপত্র নিতে পারেনি।

ঝিকরগাছা থানার দ্বিতীয় শীর্ষ কর্মকর্তা গৌতম কুমার জানান, রাত পৌনে ৩টায় খবর পেয়ে ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। সেখানে নৈশ প্রহরীদের একজন আব্দুস সামাদকে (৮০) অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। তাঁকে দ্রুত ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

চিকিৎসক সায়মা সানজিদা দুপুরে বলেন, ‘তাঁকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল। ’

মৃত সামাদ ঝিকরগাছা ইউনিয়নের বেড়েলা গ্রামের মৃত তুরফান মোড়লের ছেলে। সামাদের ছেলে নুরনবী এ হত্যাকাণ্ডের বিচার চেয়ে ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। অন্য তিন নৈশ প্রহরী সুস্থ আছেন।

নৈশ প্রহরীদের সুপারভাইজার সুকুমার বলেন, ‘রাত ৩টায় আমি নিয়মিত তদারকিতে এলে আমিসহ চারজনকে হাত-পা বেঁধে মুখে কসটেপ দিয়ে পাশে ফেলে রাখা হয়। এরপর আমরা কৌশলে বাঁধন খুলে বিভিন্ন স্থানে খবর দিই। তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে চলে আসে। ’

দুপুরে ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুমন ভক্ত বলেন, ‘ডাকাত ধরতে অভিযান চলছে। লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। ’



সাতদিনের সেরা