kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

চালের দুর্মূল্যেও ধানের চারা নষ্ট করল দুর্বৃত্তরা

নওগাঁর ধামইরহাট

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি   

১৪ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চালের দুর্মূল্যেও ধানের চারা নষ্ট করল দুর্বৃত্তরা

ধামইরহাটের বড় মইশড় গ্রামে নষ্ট করা ধানক্ষেত। ছবি : কালের কণ্ঠ

চালের দাম যখন বাড়ছে, তখন নওগাঁর ধামইরহাটে রবিউল ইসলাম (৪০) নামে এক কৃষকের ১৫০ শতাংশ জমির ধানের চারা উপড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। গত শুক্রবার রাতে উপজেলার ধামইরহাট ইউনিয়নের বড় মইশড় গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

ক্ষতিগ্রস্ত রবিউল মইশড় গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে। রবিউল জানান, প্রায় ৩৫ বছর আগে একই গ্রামের শাহাজ উদ্দিন এবং তাঁর ভাই মনসুর ও মিয়াজান আলীর কাছ থেকে কবলা দলিলমূলে ১৫০ শতাংশ জমি কেনেন তাঁর বাবা।

বিজ্ঞাপন

এ নিয়ে ১৯৮৬ ও ১৯৯৪ সালে ধামইরহাট সাবরেজিস্ট্রি অফিসে দুটি দলিল সম্পাদিত হয়। কিন্তু জমি বিক্রেতার তিন ছেলে সাদেকুল ইসলাম, মনসুর রহমান ও আনিসুর রহমান ওই জমি তাঁদের বলে দাবি করেন এবং বিভিন্ন সময় ক্ষেতের ফসলের ক্ষতি করেন।

তিনি বলেন, ‘শুক্রবার রাতের কোনো একসময় ওই জমির ধানের চারা উপড়ে ফেলা হয়। কাগজপত্র না থাকলেও শুধু গায়ের জোরে তাঁরা আমাদের লাগানো ধানের চারা উপড়ে ফেলে প্রায় ২৫-৩০ হাজার টাকার ক্ষতি করেছেন। ’ এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

তবে জমিতে রোপণ করা ধানের চারা উপড়ে ফেলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অন্যতম অভিযুক্ত উপজেলার শালুককুড়ি গ্রামের মৃত মিয়াজান হোসেনের ছেলে আনিসুর রহমান। তিনি বলেন, ‘ধানের চারা উপড়ে ফেলার কাজ আমরা করিনি। তবে ওই জমি আমার বাবা ও চাচাদের। প্রায় ৩০ বছর ধরে জমিটি জোরপূর্বক দখল করে রেখেছে রবিউলদের পরিবার। ’

 



সাতদিনের সেরা