kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

দোকানির ৫০ হাজার টাকা লোপাট

রাবি প্রতিনিধি   

১৩ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দোকানির ৫০ হাজার টাকা লোপাট

নারী ক্রেতার সঙ্গে ব্যবসায়ীকে দোকানে বন্দি করে জোরপূর্বক ৫০ হাজার টাকা ক্যাশ বক্স থেকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখা ছাত্রলীগের একাংশের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ হবিবুর রহমান হলের সামনের এক মুদি দোকানে এই ঘটনা ঘটে। তবে এ ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতারা দোকানদার সেলিমের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

ভুক্তভোগী দোকানদারের নাম সেলিম হোসেন।

বিজ্ঞাপন

তাঁর অভিযোগ, এক নারী ক্রেতা তার দোকানের ভেতরে মোবাইল রিচার্জ করতে এলে দরজা খোলা পেয়ে তিনি দোকানের ভেতরে প্রবেশ করেন। এ সময় দরজার সাটার নামিয়ে দিয়ে ছাত্রলীগের কিছু নেতা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা দিতে রাজি না হলে তাঁদের একজন ক্যাশ বাক্স থেকে ৫০ হাজার টাকা তুলে নেন।

এ ঘটনায় রাবির শহীদ জিয়াউর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রাশেদ খান, হবিবুর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সামিউল আলম সোহাগ ও আইবিএ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু সিনহা জড়িত বলে জানা গেছে।

মুদি দোকানদার সেলিম হোসেন এ বিষয়ে বলেন, ‘মোবাইলে রিচার্জ করার জন্য এক নারী আমার দোকানে আসেন। এ সময় দোকানের দরজা খোলা থাকায় ওই নারী দোকানের একটু ভেতরে প্রবেশ করেন। এমতাবস্থায় ছাত্রলীগের কয়েকজন সেখানে চলে আসেন এবং রাশেদ ও সোহাগ দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে যান। সেখানে সিনহা নামেরও একজন ছিলেন। ’

টাকা নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে সামিউল ইসলাম সোহাগ বলেন, ‘দুপুরে হলের সামনে অবস্থিত দোকানে এক মহিলার সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় সেলিম হোসেন ধরা পড়েন। এতে অনেকের সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হয়। পরে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এবং রানা নামের একজন দোকানের ঝাঁপ নামিয়ে দেন। আমি এককভাবে কিছুই করিনি। তা ছাড়া দোকানের টাকা নেওয়ার বিষয়ে আমি জানি না। ’

মো. রাশেদ খান বলেন, ‘আমি সেখানে যাওয়ার এক মিনিটের মধ্যে সহকারী প্রক্টর এসে তাঁদের নিয়ে যান। আমি কোনো টাকা নিইনি। ’

আইবিএ শাখা ছাত্রলীগের সামিউল আলম সোহাগ বলেন, ‘আমি এসে দেখি ওইখানে দোকানদার নারীসহ আটকিয়ে রাখছেন। পরে প্রক্টর এসে তাঁদের নিয়ে গেলেন। টাকা নেওয়ার ব্যাপারে কিছু জানি না। ’

প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক বলেন, ‘দুপুরে হলের সামনের দোকানে আপত্তিকর ঘটনার খবর পেলে ঘটনাস্থলে যায় প্রক্টরিয়াল টিম। এ বিষয়ে প্রক্টরিয়াল টিম সত্যতা যাচাই-বাছাই করছে। ’

টাকা নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে টাকার বিষয়ে কেউ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

 



সাতদিনের সেরা