kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ আগস্ট ২০২২ । ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১২ মহররম ১৪৪৪

সরকারি জমি দখলে নেতা-নেত্রীর দ্বন্দ্ব

পাবনার ভাঙ্গুড়া

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি   

১ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সরকারি জমি দখলে নেতা-নেত্রীর দ্বন্দ্ব

ভাঙ্গুড়ায় সরকারি জমিতে বালু ফেলা হচ্ছে। ছবি : কালের কণ্ঠ

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় সরকারি জমি দখল নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের এক প্রভাবশালী নেত্রীর সঙ্গে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েছেন আরেক প্রভাবশালী নেতা। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সর্দার আবুল কালাম আজাদ ও  উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক মহিলাবিষয়ক সম্পাদক গুলশান আরা পারভীনের মধ্যে চলছে এই দ্বন্দ্ব।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পারভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের পাথরঘাটা মৌজায় গুলশান আরা পারভীনের বাড়ির সামনে ২৯ শতক সরকারি খাস জমি রয়েছে। এই জমি গুলশান আরা অনেক আগে থেকে ভোগদখল করছেন।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি একটি ক্লাব ও গ্রামের মসজিদের নাম করে এই খাস জমি দখলের নেওয়ার চেষ্টা করছেন আবুল কালাম আজাদসহ অন্যরা। এ জন্য সড়কের পাশের গাছপালা কেটে মঙ্গলবার গভীর রাতে মাটি ফেলা শুরু করেন এবং ঘর নির্মাণের সামগ্রী জড়ো করা হয়। ভাঙ্গুড়া থানায় বিষয়টি জানালে রাতেই এসে কাজ বন্ধ করে দেয় পুলিশ। এরপর বুধবার গুলশান আরা পারভীনের স্বামী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আফসার আলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ ও জয় বাংলা ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেনসহ চারজনের বিরুদ্ধে জবরদখলের লিখিত অভিযোগ করেন।

গুলশান আরা পারভীন বলেন, ‘সরকারি জায়গা আমাদের পুকুরের সামনে হলেও কোনো স্থাপনা নির্মাণ করিনি। শুধু গাছপালা লাগিয়েছি। কিন্তু আওয়ামী লীগ নেতা আজাদ সেগুলো অবৈধভাবে কেটে জোরপূর্বক জায়গা দখল করে স্থাপনা নির্মাণের চেষ্টা চালাচ্ছে। ’

আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে জবরদখলের অভিযোগ ভিত্তিহীন। ’

ভাঙ্গুড়া থানার ওসি ফয়সাল বিন আহসান বলেন, ‘মঙ্গলবার রাতে অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিক কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদ হাসান খান বলেন, ‘স্থাপনা নির্মাণ করতে নিষেধ করা হয়েছে। ’

 

 



সাতদিনের সেরা