kalerkantho

রবিবার । ১৪ আগস্ট ২০২২ । ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৫ মহররম ১৪৪৪

পশুর হাটে অতিরিক্ত হাসিল

বদলগাছী, মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি   

৩০ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পশুর হাটে অতিরিক্ত হাসিল

নওগাঁর বদলগাছীতে ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে উপজেলার কোলার হাটে কোরবানির গরু-ছাগল বেচাকেনায় অতিরিক্ত হাসিল নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, সরকারিভাবে গরু-ছাগলের হাসিল যতই বাড়ছে ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে অতিরিক্ত হাসিল আদায়ের অবৈধ প্রক্রিয়া।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নওগাঁ জেলা হাট-বাজারের নতুন হাসিল রেট অনুসারে একটি গরু কিনলে খাজনা দিতে হবে ৫০০ টাকা, আগের রেট ছিল ৪০০ টাকা।

ছাগল কিনলে খাজনা দিতে হবে ২০০ টাকা, আগের রেট ছিল ১৫০ টাকা।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু নিয়মনীতি উপেক্ষা করে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে হাটটিতে হাসিল নেওয়া হয় ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ের কাছ থেকেই। ছাগল বিক্রিতে হাসিল নেওয়া হয় ৪০০ টাকা।

কোলার হাটে গরুর হাট বসে শুধু শুক্রবার। তথ্য সংগ্রহকালে হাটের মধ্যে বেঞ্চ নিয়ে বসে আছে কয়েকজন ব্যক্তি। তাঁদের মধ্যে তুহিন ও সুমনের কাছে জানতে হাসিল সম্পর্কে জানতে চাইলে তাঁরা জানান, যে কিনবে তাঁর সাড়ে ৫০০ টাকা এবং যে বিক্রি করবে তাঁর ৫০ টাকা। এ সময় পেছন থেকে একজন জানান, ৫০ টাকার মধ্যে ৩০ টাকা নেবে হাট ইজারাদার আর ২০ টাকা তাঁদের রসিদ লেখা মজুরি।

চলতি সালে গরু-ছাগলের হাসিল বৃদ্ধি করা হয়েছে। তার পরেও কেন অতিরিক্ত হাসিল নেওয়া হচ্ছে? জানতে চেয়ে কোলা হাট ইজারাদার আবু সাঈদ ফকিরের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে ফোন রিসিভ হয়নি।

ঈদের আগ মুহূর্তে হাটগুলোতে কোরবানির পশুর ওপর অতিরিক্ত হাসিল আদায়ের মহোৎসব পড়ে যায়। বাজার মনিটরিং ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এসব রোধ করার দাবি এলাকাবাসীর।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলপনা ইয়াসমিন জানান, হাটে হাসিল রেট ঝোলানোর ব্যবস্থা করতে হবে। এসব রোধে বাজার মনিটরিংসহ প্রয়োজনে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

 

 



সাতদিনের সেরা