kalerkantho

শুক্রবার । ১২ আগস্ট ২০২২ । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৩ মহররম ১৪৪৪

ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ

রংপুরে স্পিকারের নাম ভাঙিয়ে অনিয়ম

সংবাদ সম্মেলনে কুমেদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলামের নানা অনিয়মের চিত্র তুলে ধরা হয়

রংপুর অফিস   

২৮ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্পিকারের নাম ভাঙিয়ে বিভিন্ন ধরনের অনিয়ম করার অভিযোগ উঠেছে রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার কুমেদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় গতকাল সোমবার বিকেলে রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাব মিলনায়তনে একই ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য দেবব্রত অধিকারী দেবু সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে ইউপি সদস্য দেবব্রত অধিকারী বলেন, ‘মাননীয় স্পিকারের সঙ্গে সুসম্পর্কের জেরে তাঁর নাম ভাঙিয়ে কর্মসৃজন কর্মসূচিতে শ্রমিক নিয়োগে অনিয়ম, বয়স্ক ভাতা ও বিধবা ভাতার কার্ড করে দেওয়ার নামে টাকা উত্তোলন, এসব তালিকায় একই নাম একাধিকবার ব্যবহার করে আসছেন চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম। এসব বিষয় নিয়ে মামলা হলেও আদালতের আদেশ মানছেন না তিনি।

বিজ্ঞাপন

এমনকি উপজেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি দিয়েও এসব বিষয়ে কোনো সমাধান মিলছে না। ’

ইউপি সদস্য দেবব্রত অধিকারী আরো বলেন, ‘আমি আমার নির্বাচিত ওয়ার্ডে ঈদ উপলক্ষে ভিজিএফ চালের ১২০ জনের তালিকার অনুমোদন চাইলে চেয়ারম্যান তা বাদ দেন। এ নিয়ে আমি পীরগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলা করেছি। কিন্তু আদালতের আদেশকে মানছেন না চেয়ারম্যান। মাননীয় স্পিকারের সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকায় প্রশাসনও তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সাহস পাচ্ছে না বলে আমার মনে হয়েছে। ’ চেয়ারম্যানের এ ধরনের কর্মকাণ্ডে আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন্ন হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কুমেদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘এ অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট। ওই ইউপি সদস্য সব সময় রংপুরে থাকেন। এলাকায় থাকেন না। মূলত তিনিই নানা ধরনের অনিয়মে জড়িত। কিন্তু আমি তা করার সুযোগ না দেওয়ায় আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে। ’

 



সাতদিনের সেরা