kalerkantho

শনিবার । ২০ আগস্ট ২০২২ । ৫ ভাদ্র ১৪২৯ । ২১ মহররম ১৪৪৪

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে সনদপত্র তুলতে হয়রানি

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৭ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের দপ্তরে সনদপত্র তুলতে গিয়ে ভোগান্তিতে পড়ছেন শিক্ষার্থীরা।

দপ্তর সূত্রে জানা যায়, সাধারণভাবে আবেদনের ১৫ দিনের মধ্যে এবং জরুরি ভিত্তিতে পাঁচ দিনের মধ্যে কাগজপত্র দেওয়ার নিয়ম রয়েছে। তবে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, নিয়ম মেনে আবেদনপত্র দেওয়ার পর নির্দিষ্ট সময় পার হয়ে গেলেও কাঙ্ক্ষিত কাগজপত্র মেলে না। মাসের পর মাসও কেটে যায়।

বিজ্ঞাপন

ঘটে আবেদনপত্র হারিয়ে ফেলার মতো ঘটনাও। আবেদন ও সত্যায়নের জন্য ব্যাংক, বিভাগ ও আবাসিক হলে ঘুরতে হয় শিক্ষার্থীদের। এসব কাজে পদে পদে পোহাতে হয় দুর্ভোগ।

সদ্য স্নাতকোত্তর শেষ করা এম বিল্লাহ গতকাল রবিবার বলেন, ‘জানুয়ারিতে সনদ ও নম্বরপত্রের জন্য আবেদন করেছি। মাস পেরোনোর পর সনদ না পেয়ে যোগাযোগ করলে কর্মকর্তারা জানান আবেদনপত্র হারিয়ে গেছে। এরপর কয়েক দফায় খোঁজ নিয়েছি, এখনো কাগজপত্র পাইনি। ’

চতুর্থ বর্ষের ছাত্রী সুস্মিতা ঘোষ বলেন, ‘আমি গত জানুয়ারিতে প্রথম বর্ষের নম্বরপত্র উত্তোলনের জন্য আবেদন করেছিলাম। পাঁচ মাস পার হলেও পাচ্ছিলাম না। পরে আমার এক পরিচিতের সাহায্যে ২২ জুনে তা হাতে পেয়েছি। উনি সাহায্য না করলে আরো কয়েক মাসেও হয়তো পেতাম না। নম্বরপত্র না দিতে পারায় আমি হলে আবাসিকতা পাইনি। অফিসে গেলে দেখতাম কর্মকর্তারা নেই। ’

ঝিনাইদহ থেকে স্বামীকে সঙ্গে নিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক লোকপ্রশাসন বিভাগের সাবেক এক ছাত্রী বলেন, ‘তিন দিন ধরে টেবিলে টেবিলে ঘুরছি। এখনো কয়েকটি কাগজ হাতে পাওয়া বাকি। জানি না আরো কত দিন ঘুরতে হবে। ’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাংলা বিভাগের সাবেক এক ছাত্র বলেন, ‘চাকরি থেকে ছুটি নিয়ে কাগজপত্র তুলতে ক্যাম্পাসে এসে দ্বিগুণ টাকা দিয়ে জরুরি ভিত্তিতে আবেদন করেছি। কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের যে ব্যবহার, মনে হয় আমরা তাঁদের কাছে গৃহপালিত পশু। ’

এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এ কে আজাদ লাভলু বলেন, ‘জায়গার সংকট এবং পিয়ন—তৃতীয় শ্রেণির জন্য কমপক্ষে ১৫ জন নতুন জনবল দরকার। আমরা বারবার নোট দিলেও কর্তৃপক্ষ পদক্ষেপ নিচ্ছে না। ’

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে জনবলের কোনো সংকট আছে বলে আমার মনে হয় না। আমরা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলব। ’

 



সাতদিনের সেরা