kalerkantho

শনিবার । ১৩ আগস্ট ২০২২ । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৪ মহররম ১৪৪৪  

এক যুগ ধরে তালাবদ্ধ এক্স-রে কক্ষ

বেতাগী (বরগুনা) প্রতিনিধি   

২৫ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এক যুগ ধরে তালাবদ্ধ এক্স-রে কক্ষ

বরগুনার বেতাগী উপজেলার ৫০ শয্যাবিশিষ্ট  স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত ১২ বছর যাবৎ নষ্ট হয়ে আছে এক্স-রে মেশিন। অপারেশন থিয়েটারের মেঝেতে নোংরা পানি, স্যাঁতসেঁতে অবস্থা, ভাঙা জানালা ও মশা-মাছিতে পরিপূর্ণ। পরিত্যক্ত ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চিকিৎসাসেবা চলছে। স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে তদন্তদলের প্রতিবেদনের পর বদলি করানো হলেও তিনি অফিস করছেন সরকারি বাসভবনে।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, সাতজন চিকিৎসক দিয়ে এ উপজেলায় একটি পৌরসভাসহ সাতটি ইউনিয়নে এক লাখ ৫৩ হাজার ৫৭৬ জন মানুষের চিকিৎসা দিতে হচ্ছে।

১২ বছর ধরে নষ্ট হয়ে আছে এক্স-রে মেশিন। নেই এক্স-রে টেকনোলজিস্টও। সনোলজিস্ট না থাকায় অকেজো হয়ে আছে মেশিনটি।

রোগীদের যেকোনো ছোটখাটো অপারেশন ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য যেতে হয় অন্যান্য বেসরকারি ক্লিনিকে। হাসপাতালে ব্যান্ডেজ, তুলা থাকতেও রোগীদের রোগীদের বাইরে থেকে কিনতে হয়। এমএসআর যন্ত্রপাতি মেরামতের অর্থ বরাদ্দ থাকলেও এসব যন্ত্রপাতি নষ্ট ও অকেজো।

কেওড়াবুনিয়া গ্রামের রোগী নূরজাহান বেগম বলেন, ‘টাকার অভাবে এখানে ভর্তি হয়েছি; কিন্তু হাসপাতালের নোংরা পরিবেশ এবং চিকিৎসাসেবা খুবই খারাপ। ’

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একাধিক কর্মচারী জানান, বদলি আদেশের পর স্বাস্থ্য কর্মকর্তা কমপ্লেক্সের অফিসে আসেননি। তিনি সরকারি বাসভবনে বসে নিজের ইচ্ছামতো অফিস করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবনটিও জরাজীর্ণ। ছাদের পলেস্তারা ধসে পড়ছে। গত ১৩ এপ্রিল পুরুষ ওয়ার্ডের ছাদের পলেস্তারা ধসে আব্দুস সালাম (৬০) বছরের এক রোগী গুরুতর আহত হয়েছেন। ওই সময় আরএমওর দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক রবীন্দ্রনাথ সরকার বলেন, ‘এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ছয় মাস আগেই পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। ’

বেতাগী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আমানুল্লাহ আল-মামুন বলেন, ‘তথ্য দিতে হলে আমার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অনুমতি নিতে হবে। ’

বরগুনার সিভিল সার্জন ডা. মো. ফজলুল হক বলেন, ‘বরাদ্দের টাকা যথাযথভাবে ব্যবহার করা হয়েছে, এরপর কোনো অনিয়ম থাকলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এক্স-রে কক্ষের প্রযুক্তিবিদের চাহিদাপত্র পাঠানো হয়েছে। ’

 



সাতদিনের সেরা