kalerkantho

শনিবার । ২৫ জুন ২০২২ । ১১ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৪ জিলকদ ১৪৪৩

বরগুনা

কোড ছাড়া পূর্ণাঙ্গ হাসপাতাল বেতন বন্ধ কর্মীদের

২০ শয্যার হাসপাতালটিকে ২০২২ সালের জানুয়ারিতে ৩১ শয্যার পূর্ণাঙ্গ হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি   

২২ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বরগুনার তালতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৩০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী তিন মাস ধরে বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না। বেতন-ভাতা বন্ধ থাকায় অনেক কর্মচারী মানবেতর জীবন যাপন করছেন।

তালতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০ শয্যার হাসপাতালটিকে ২০২২ সালের জানুয়ারিতে ৩১ শয্যার পূর্ণাঙ্গ হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। গত জানুয়ারিতে একজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও ফেব্রুয়ারিতে অন্যদের পদায়ন করে কর্তৃপক্ষ।

বিজ্ঞাপন

এতে ৫৩ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারী রয়েছেন। তবে হাসপাতালটির নামে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধীন ইন্টিগ্রেটেড বাজেট অ্যাকাউন্টিং সিস্টেম (আইপাস) থেকে তালতলী হাসপাতালের নামে একটি কোড নম্বর চালু করা হয়নি। এতে ফেব্রুয়ারি, মার্চ ও এপ্রিল মাসের বেতন-ভাতা ও ঈদুল ফিতরের বোনাস পাননি হাসপাতালের কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মচারী বলেন, ‘ঈদের সময় পরিবার ও সন্তানদের নতুন পোশাকসহ কোনো কিছু কিনে দিতে পারিনি। এটা ছিল আমাদের কাছে অনেক বেদনার। ’

আমতলী উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবু সালেহ জানান, তালতলীতে নতুন ঘোষণা করা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নামে আইপাস থেকে কোনো কোড নম্বর প্রদান না করায় এ ঘটনা ঘটেছে। তবে এ জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

তালতলী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শাকিলা আক্তার বলেন, ‘নতুন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চালু হওয়ায় কোড নম্বর না থাকায় আমরা তিন মাস ধরে বেতন-ভাতা এবং ঈদ বোনাস পাইনি। আমি নিজে পাইনি চার মাস। তালতলী নতুন হাসপাতালের নামে যাতে দ্রুত কোড নম্বর পড়ে সে জন্য আমার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। ’

বরগুনার জেলা সিভিল সার্জন ডা. ফজলুল হক মুঠোফোনে জানান, তালতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নামে নতুন কোড নম্বর ও বেতন-বোনাস পাওয়ার জন্য সব কাগজপত্র অর্থ মন্ত্রণালয়, ডিজি (ফাইন্যান্স) এবং আইপাসে পাঠানো হয়েছে। আশা করি দ্রুত পাওয়া যাবে।



সাতদিনের সেরা