kalerkantho

শনিবার ।  ২১ মে ২০২২ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩  

ছাত্রলীগ সভাপতিকে পেট্রল ঢেলে আগুন দেওয়ার চেষ্টা

কালকিনির কয়ারিয়া ইউনিয়ন

মাদারীপুর সংবাদদাতা   

২০ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলায় এক ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতির গায়ে পেট্রল ঢেলে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে থানা পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার কয়ারিয়া ইউনিয়নের ময়দানের বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কালকিনি উপজেলার কয়ারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী জাকির জমাদ্দারের ছেলে কয়ারিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি নাঈম জমাদ্দারের ওপর হামলা চালানো হয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। বিজয়ী চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদের সমর্থকরা এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে। সেই থেকে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি নাঈম জমাদ্দার ঢাকায় চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। কিছুটা সুস্থ হওয়ায় মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন তিনি। ওই দিনই সন্ধ্যায় কয়ারিয়ার ময়দানের বাজারে গিয়ে এলাকার লোকজনের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। এ সময় একই এলাকার আনোয়ার হাওলাদারের ছেলে ও নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদের সমর্থক বাপ্পি হাওলাদারের নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন যুবক পেছন থেকে নাঈমের শরীরে পেট্রল ঢেলে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালায়। এ সময় নাঈম দৌড় দিয়ে একটি দোকানে ঢুকে নিজেকে রক্ষা করেন। পরে কালকিনি থানা পুলিশ খবর পেয়ে নাঈমকে ওই দোকান থেকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌঁছে দেন।

নাঈমের বাবা জাকির জমাদ্দার বলেন, ‘আমার ছেলেকে হত্যা করার জন্য বাপ্পিসহ বেশ কয়েকজন মিলে তার শরীরে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালায়। ’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত বাপ্পি হাওলাদারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাঁকে পাওয়া যায়নি। নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মোল্লা বলেন, ‘নাঈমকে পেট্রল ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় অভিযুক্ত বাপ্পি আমার লোক নয়। ’ মাদারীপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদ হোসেন অনিক বলেন, ‘এ ঘটনায় দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি করছি। ’

কালকিনি থানার উপপরিদর্শক মো. নাসিরউদ্দিন বলেন, ‘নাঈমের শরীরে পেট্রল ঢালার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছি। এ বিষয়ে নাঈমের বাবা একটি অভিযোগ করেছেন। অভিযোগটি তদন্ত করে দেখা হবে। ’



সাতদিনের সেরা