kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ২৬ মে ২০২২ । ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৪ শাওয়াল ১৪৪

লাল ফিতায় বন্দি আট বছর

রংপুর অফিস   

১৯ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



লাল ফিতায় বন্দি আট বছর

উন্নয়ন ও সংস্কারসহ পাঁচ দফা দাবিতে রংপুর সিটি বাজারের ব্যবসায়ীরা গতকাল ধর্মঘট পালন করেন। ছবি : কালের কণ্ঠ

মন্ত্রিপরিষদ অনুমোদনের প্রায় আট বছর পার হলেও এখনো লাল ফিতায় বন্দি রংপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। ফলে অপরিকল্পিতভাবে গড়ে উঠছে এই নগর।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ৮ জুন সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদসচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে প্রশাসনিক উন্নয়নসংক্রান্ত সচিব কমিটির সভা হয়। সভায় রংপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গঠনের সুপারিশ করে স্বশাসিত সংস্থা গঠনের নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

সে সময় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে মতামতের আলোকে টেকনিক্যাল কমিটি কর্তৃক যাচাই-বাছাইয়ের পর প্রস্তাবিত রংপুর, সিলেট, বরিশাল—তিনটি কর্তৃপক্ষের আইনের খসড়া প্রণয়ন করা হয়। মন্ত্রিপরিষদের অনুমোদনের প্রায় আট বছর পেরিয়ে গেলেও রংপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গঠন এবং এর কোনো কার্যক্রমের অগ্রগতি না হওয়ায় ক্ষুব্ধ নগরবাসী।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালের ২৫ জানুয়ারি গঠিত হয় রংপুর বিভাগ। এরপর ২০১২ সালের ২০ ডিসেম্বর গঠিত হয় রংপুর সিটি করপোরেশন। রংপুর বিভাগ ঘোষণার প্রায় ১২ বছর ও সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠার প্রায় ১০ বছর পেরিয়ে গেছে। তবে এখনো গঠিত হয়নি রংপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।

প্রায় ১০ লাখ মানুষের এই নগরে রংপুর বিভাগীয় সদর দপ্তর কমপ্লেক্স ছাড়া কোনো স্থাপনা পরিকল্পিতভাবে গড়ে ওঠেনি। অপরিকল্পিতভাবে গড়ে উঠেছে দোকানপাট, শপিং মল, আবাসিক ভবন। ফলে যানজট, যোগাযোগব্যবস্থা, পানি নিষ্কাশনসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত হচ্ছে নগরবাসী।

সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) রংপুর মহানগর সভাপতি অধ্যক্ষ খন্দকার ফখরুল আনাম বেঞ্জু বলেন, ‘একটি আধুনিক নগরের প্রথম শর্ত হচ্ছে পরিবেশবান্ধব পরিকল্পিত নগর ব্যবস্থাপনা ও বাস্তবায়ন। আমি মনে করি, রংপুর মহানগরকে উন্নত নাগরিক সুবিধা, তথ্য-প্রযুক্তি ও পরিবেশবান্ধব হিসেবে গড়ে তুলতে উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বাস্তবায়ন এখন সময়ের দাবি। এর মাধ্যমে পিছিয়ে পড়া রংপুরকে উন্নয়নের স্রোতোধারায় সম্পৃক্ত করা সম্ভব। ’

রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক উমর ফারুক বলেন, ‘উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ নিয়ে উদাসীনতায় আমরা আহত, লজ্জিত ও হতাশ। নাগরিক সেবা নিশ্চিতকরণের জন্য উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ দ্রুত প্রতিষ্ঠা করা জরুরি। ’

এ বিষয়ে রংপুর সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র মাহমুদুর রহমান টিটু জানান, ২০১৬ সালে মাস্টারপ্ল্যান প্রস্তুত করে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হলেও দুইবার তা ফেরত পাঠানো হয়েছে। সুধীজনদের মতামত নিয়ে আবারও পাঠানোর জন্য মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে। মাস্টারপ্ল্যান না থাকায় রংপুর নগরকে পরিকল্পিতভাবে গড়ে তোলা সম্ভব হচ্ছে না। তিনি যত দ্রুত সম্ভব মাস্টারপ্ল্যান অনুমোদন দেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান। রংপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ অনুমোদন না হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এ বিষয়টি আমি জানি না। ’



সাতদিনের সেরা