kalerkantho

বুধবার ।  ১৮ মে ২০২২ । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩  

টাকা ছাড়া কাজ হয় না

মনোহরদী উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়

মনোহরদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি   

১৮ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ে চরম হয়রানি ও ঘুষ লেনদেনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত যেকোনো কাজে গেলেই টাকা দিতে হয়। এতে দূর-দূরান্ত থেকে নির্বাচন অফিসে আসা লোকজন চরম বিরক্ত হন। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ ও অফিস সহকারী-কাম-কম্পিউটার অপারেটর সোহরাব হোসেনের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ উঠেছে।

বিজ্ঞাপন

ভুক্তভোগীরা বিষয়টিকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন।

এ ছাড়া সদ্যঃসমাপ্ত চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রার্থীদের কাছ থেকে নির্বাচন কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ অর্থ আদায় করেছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে। প্রার্থিতা বাতিলের ভয়ভীতি দেখিয়ে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করেন তিনি।

নির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ নির্ধারিত মনোনয়ন ফরম বিক্রি থেকে শুরু করে প্রতীক বরাদ্দ পর্যন্ত বিভিন্ন ধাপে প্রার্থীদের কাছ থেকে ঘুষ গ্রহণ করেছেন। মনোনয়ন ফরম বৈধ সত্ত্বেও বেশির ভাগ প্রার্থীর সঙ্গে যোগাযোগ করে মনোনয়ন ফরম বাতিলের ভয় দেখিয়ে টাকা আদায় করেছেন। এ ছাড়া ভোটের দিন ভোটকেন্দ্রে দায়িত্ব পালনকারী প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসারদের পছন্দমতো কেন্দ্রে নিয়োগের কথা বলেও প্রার্থীদের কাছ থেকে আর্থিক সুবিধা গ্রহণ করার অভিযোগ রয়েছে।

তবে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ ঘুষ লেনদেনের অভিযোগ অস্বীকার করেন।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিনের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও রিসিভ করেননি।



সাতদিনের সেরা