kalerkantho

বুধবার ।  ২৫ মে ২০২২ । ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩  

চট্টগ্রামে শনাক্তের হার ২৭ শতাংশ

নূপুর দেব, চট্টগ্রাম   

১৭ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চট্টগ্রামে ২১ দিনের ব্যবধানে করোনার সংক্রমণ বেড়েছে ১৮৩ গুণের বেশি। এর মধ্যে গতকাল সকাল ৮টা থেকে পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় এক হাজার ৯৮৩ নমুনা পরীক্ষায় ৫৫০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষার অনুপাতে শনাক্তের হার ২৭.৭৪ শতাংশ। যেখানে দেশে গড় শনাক্তের হার ছিল ১৭.৮২ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী গতকাল রবিবার বিকেলে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘করোনার সংক্রমণ এখন চট্টগ্রামেই জাতীয় পর্যায়ের শনাক্তের হারের চেয়ে বেশি। মানুষ কিছুই মানছে না। বিভিন্ন নির্বাচনের কারণে লোকসমাগম, বিনোদন স্পটগুলোতেও লোকজনের ভিড়। হোটেল-রেস্তোরাঁগুলোতেও কিছু মানা হচ্ছে না। স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব না মানার কারণে সংক্রমণ অনেক বেড়ে গেছে। ’

চট্টগ্রামের জন্য আলাদা কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে কি না জানতে চাইলে তিনি আরো বলেন, ‘আপাতত কোনো উদ্যোগ নেই। তবে দুই-এক দিন সংক্রমণের হার দেখে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে। গত এক সপ্তাহ করোনা সংক্রমণ অনেক বেড়ে গেছে। এটা অ্যালার্মিং। যাঁরা মুখে মাস্ক পরছেন, তাঁরাও ঠিকভাবে দিচ্ছেন না। ’

চট্টগ্রামের বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বিভিন্ন জেলার মানুষ ব্যবসা-পর্যটনসহ অন্যান্য কাজে যাতায়াত করছেন এখানে। এই মুহূর্তে সংক্রমণ উচ্চগতিতে। আপাতত মৃত্যু না থাকলেও এই সংক্রমণ প্রাণঘাতী হয়ে উঠতে পারে। ফলে সবাইকে খুবই সতর্ক হতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মানতেই হবে। আমাদের অর্থনীতির চাকাও সচল রাখতে হবে। সব কিছু মেনেই সংক্রমণ কমিয়ে আনতে হবে। ’

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের করোনার তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা যায়, গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর এক হাজার ৭৭টি নমুনা পরীক্ষায় তিনজনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদিন শনাক্তের হার ছিল ০.২৮ শতাংশ। এর পর থেকে ক্রমে বেড়ে চলেছে সংক্রমণ। গত শনিবার শনাক্তের হার ছিল ১২.২৯ শতাংশ। ওই দিন এক হাজার ৯৪৪ নমুনা পরীক্ষায় ২৩৯ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। গত ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে শনাক্তের হার বেড়েছে ১৫.৪৫ শতাংশ। শনাক্তের মধ্যে বেশির ভাগ নগরে।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় মোট শনাক্ত ৫৫০ জনের মধ্যে নগরে ৩৬২ জন ও জেলায় ১৮৮ জন। এ নিয়ে মোট শনাক্ত হয়েছে এক লাখ চার হাজার ৯৭৭ জনের দেহে। এর মধ্যে নগরে ৭৬ হাজার ১৯৪ জন ও জেলায় ২৮ হাজার ৭৮৩ জন। করোনা আক্রান্ত হয়ে মোট মারা গেছে এক হাজার ৩৩৫ জন। এর মধ্যে নগরে ৭২৫ জন ও জেলায় ৬১০ জন। চট্টগ্রামে মোট করোনা শনাক্ত অনুপাতে মৃত্যুহার ১.২৭ শতাংশ।

সরেজমিন দেখা গেছে, ব্যবসা-বাণিজ্যের কারণে এখানে দেশের বিভিন্ন এলাকার মানুষ আসছেন। কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মানার বালাই নেই। সরকারের ঘোষিত ১১টি বিশেষ নির্দেশনা মানার সংখ্যা নগণ্য। দেশের বাইরে থেকেও বাণিজ্যিক রাজধানীতে ব্যবসা-বাণিজ্য ও পর্যটন ঘিরে অনেকে আসছেন। বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, বাণিজ্যিক রাজধানীখ্যাত চট্টগ্রামকে অত্যধিক গুরুত্ব দিয়ে সংক্রমণের হার কমানো না গেলে পরিস্থিতি খারাপের দিকে চলে যাবে।



সাতদিনের সেরা