kalerkantho

বুধবার । ১২ মাঘ ১৪২৮। ২৬ জানুয়ারি ২০২২। ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

৮ বছরেও সাক্ষ্য শুরু হয়নি

লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগ নেতা জসিম হত্যা

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

৬ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান জসিম (৩২) হত্যা মামলার অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিলের প্রায় আট বছরেও সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়নি। তাঁকে ২০১৩ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি গভীর রাতে ঘরের ভেতরে ঢুকে গুলি করে হত্যা করা হয়। জসিম সদর উপজেলার কফিল উদ্দিন ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সাহিত্যবিষয়ক সম্পাদক ছিলেন।

২০১৪ সালের ২৭ মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেছিলেন।

বিজ্ঞাপন

এর পর থেকে রবিবার (৫ ডিসেম্বর) পর্যন্ত এ মামলায় একজনের সাক্ষ্যও নেওয়া হয়নি।

এই হত্যার বিচার পাবেন কি না, তা নিয়ে সংশয়ে রয়েছেন জসিমের বৃদ্ধ মা-বাবা।   ছেলের কথা মনে পড়লেই তাঁরা এখনো ডুকরে কেঁদে ওঠেন।

তবে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি জসিম উদ্দিন জানিয়েছেন, মহামারি করোনাসহ নানা কারণে মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়নি। তিনি বলেন, আগামী ৩১ ডিসেম্বর তারিখ রয়েছে।

মামলার এজাহার ও থানার পুলিশ সূত্র জানায়, সদর উপজেলার দত্তপাড়ার শ্রীরামপুর গ্রামের মফিজ উল্যার সঙ্গে প্রতিবেশী মোবারক উল্যা ও আলী হোসেন বাচ্চুদের জমি নিয়ে বিরোধের জেরে এই হত্যাকাণ্ড।

নিহতের ভাই মিজানুর রহমান বলেন, ‘১৯৯১ সাল থেকেই আমরা অত্যাচার-নির্যাতনের শিকার। সব সময়ই পরিবারের সদস্যদের চরম আতঙ্কে থাকতে হয়। হত্যা মামলার আসামিরা জামিনে রয়েছে। তারা আমাদের ক্ষেতের ধানও লুটে নিয়েছে। ’

মামলার বাদী মফিজ উল্যা বলেন, ‘আমার ছেলেকে হত্যা করেও সন্ত্রাসীরা ক্ষান্ত হয়নি। তারা আমার বাড়িতে হামলা, লুটপাট করেছে। আগে আমাকে অপহরণ করেছে, আরেক ছেলেকে গুলি করেছে। জীবিত থাকতে ছেলে হত্যার বিচার দেখে যেতে চাই। আসামিদের ভয়ে ছেলেমেয়েরাও বাড়িতে আসতে পারে না। ’

মামলার আসামি মোবারক উল্যা বলেন, ‘আমরা হত্যা মামলায় জামিনে আছি। আইনিভাবে আমরা মামলাটি মোকাবেলা করব। হুমকি বা ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ সত্য নয়। ’



সাতদিনের সেরা